শিক্ষার্থীদের যৌন হয়রানির অভিযোগে শিক্ষক অবরুদ্ধ

5
নওগাঁর রাণীনগর উপজেলার মেরিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের যৌন হয়রানির অভিযোগে বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক হাফিজুর রহমানকে প্রায় ৫ ঘণ্টা ধরে অবরুদ্ধ করে রেখেছিল স্থানীয়রা। nagad-300-250 পরে উপজেলা সহকারি কমিশার (ভূমি) ও রাণীনগর থানা পুলিশ তাকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। রোববার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ওই বিদ্যালয়ে এ ঘটনাটি ঘটে। শিক্ষক হাফিজুর রহমান উপজেলার মিরাট ইউপির মেরিয়া গ্রামের মৃত আশোক আলীর ছেলে। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, শিক্ষক হাফিজার রহমান বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের নানান ভাবে যৌন হয়রানী করে আসছিল। এ ঘটনায় ওই শিক্ষককের যৌন হয়রানীর অভিযোগে কয়েকবার মিটিংও করেছেন এলাকাবাসী। এরপরেও ওই শিক্ষকের এমন আচরণের পরিবর্তন না হওয়ায় এবং শিক্ষকের সুষ্ঠু বিচারের দাবিতে রোববার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে স্থানীয় লোকজন বিদ্যালয়ে গিয়ে তাকে অবরুদ্ধ করে। খবর পেয়ে রাণীনগর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলেও স্থানীয়দের চাপের মুখে পরে যান। পরে উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) কর্মকর্তা বিকাল ৩টার দিকে ঘটনাস্থলে গিয়ে শিক্ষককে শাস্তির আশ্বাস দিয়ে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। রাণীনগর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) সেলিম রেজা বলেন, উপজেলা সহকারি কমিশনারসহ ঘটনাস্থল থেকে শিক্ষককে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। রাণীনগর উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) মোহাম্মদ হাফিজুর রহমান বলেন, শিক্ষককে উদ্ধার করে থানা হেফাজতে রাখা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

নিউজ ডেস্ক: নওগাঁর রাণীনগর উপজেলার মেরিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের যৌন হয়রানির অভিযোগে বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক হাফিজুর রহমানকে প্রায় ৫ ঘণ্টা ধরে অবরুদ্ধ করে রেখেছিল স্থানীয়রা।

পরে উপজেলা সহকারি কমিশার (ভূমি) ও রাণীনগর থানা পুলিশ তাকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

রোববার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ওই বিদ্যালয়ে এ ঘটনাটি ঘটে।

শিক্ষক হাফিজুর রহমান উপজেলার মিরাট ইউপির মেরিয়া গ্রামের মৃত আশোক আলীর ছেলে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, শিক্ষক হাফিজার রহমান বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের নানান ভাবে যৌন হয়রানী করে আসছিল। এ ঘটনায় ওই শিক্ষককের যৌন হয়রানীর অভিযোগে কয়েকবার মিটিংও করেছেন এলাকাবাসী। এরপরেও ওই শিক্ষকের এমন আচরণের পরিবর্তন না হওয়ায় এবং শিক্ষকের সুষ্ঠু বিচারের দাবিতে রোববার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে স্থানীয় লোকজন বিদ্যালয়ে গিয়ে তাকে অবরুদ্ধ করে। খবর পেয়ে রাণীনগর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলেও স্থানীয়দের চাপের মুখে পরে যান। পরে উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) কর্মকর্তা বিকাল ৩টার দিকে ঘটনাস্থলে গিয়ে শিক্ষককে শাস্তির আশ্বাস দিয়ে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

রাণীনগর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) সেলিম রেজা বলেন, উপজেলা সহকারি কমিশনারসহ ঘটনাস্থল থেকে শিক্ষককে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে।

রাণীনগর উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) মোহাম্মদ হাফিজুর রহমান বলেন, শিক্ষককে উদ্ধার করে থানা হেফাজতে রাখা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সূত্র: যুগান্তর