গুজরাটে আধাসামরিক বাহিনীর ক্যাম্পে এলোপাতাড়ি গুলিতে নিহত ২

9
ভারতের গুজরাটে আধাসামরিক বাহিনীর ক্যাম্পে সহকর্মীর ছোড়া এলোপাতাড়ি গুলিতে দুই জওয়ান নিহত হয়েছেন। nagad-300-250 এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও দুজন। শনিবার রাতে এ গুলির ঘটনা ঘটে। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার। আগামী মাসে গুজরাটে ভোট। তার আগে নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে রাজ্যের বিভিন্ন এলাকায় আধাসামরিক বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। তেমনই একটি ক্যাম্পে এ গুলির ঘটনা ঘটেছে। পুলিশ জানায়, যখন গুলি চালানো হয়, তখন জওয়ানরা কেউ কর্তব্যরত ছিলেন না। কোনো বিষয়কে কেন্দ্র করে তাদের কয়েকজনের মধ্যে ঝামেলা হয়। সেই থেকে গুলি চলে। পুলিশ জানিয়েছে, পোরবন্দরের কাছে ভোটের কাজের জন্য মনিপুরের ইন্ডিয়া রিজার্ভ ব্যাটালিয়ন থেকে আধাসামরিক বাহিনীর জওয়ানদের নিয়োগ করা হয়েছিল। ঘাতক জওয়ানের নাম কনস্টেবল এস ইনাউচা সিংহ। একে৪৭ রাইফেল দিয়ে তিনি সহকর্মীদের লক্ষ্য করে গুলি ছোড়েন। তার গুলিতে যাদের মৃত্যু হয়েছে, তারা হলেন— থোইবা সিংহ ও জিতেন্দ্র সিংহ। গুলিতে আরও দুই জওয়ান আহত হয়েছেন। তারা হলেন— কনস্টেবল চোরাজিৎ ও রোহিকানা। প্রত্যেকেই মনিপুরের বাসিন্দা। তাদের একজনের পেটে এবং অন্যজনের পায়ে গুলি লেগেছে। প্রাথমিকভাবে তাদের পোরবন্দর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাদের নিয়ে যাওয়া হয় জামনগরের একটি হাসপাতালে। পোরবন্দরে প্রথম পর্যায়ের ভোট হবে ১ ডিসেম্বর। পরবর্তী পর্যায়ের ভোট ৫ ডিসেম্বর। ভোটের ফল জানা যাবে ডিসেম্বরের ৮ তারিখ।

নিউজ ডেস্ক: ভারতের গুজরাটে আধাসামরিক বাহিনীর ক্যাম্পে সহকর্মীর ছোড়া এলোপাতাড়ি গুলিতে দুই জওয়ান নিহত হয়েছেন।

এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও দুজন। শনিবার রাতে এ গুলির ঘটনা ঘটে। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার।

আগামী মাসে গুজরাটে ভোট। তার আগে নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে রাজ্যের বিভিন্ন এলাকায় আধাসামরিক বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। তেমনই একটি ক্যাম্পে এ গুলির ঘটনা ঘটেছে।

পুলিশ জানায়, যখন গুলি চালানো হয়, তখন জওয়ানরা কেউ কর্তব্যরত ছিলেন না। কোনো বিষয়কে কেন্দ্র করে তাদের কয়েকজনের মধ্যে ঝামেলা হয়। সেই থেকে গুলি চলে।

পুলিশ জানিয়েছে, পোরবন্দরের কাছে ভোটের কাজের জন্য মনিপুরের ইন্ডিয়া রিজার্ভ ব্যাটালিয়ন থেকে আধাসামরিক বাহিনীর জওয়ানদের নিয়োগ করা হয়েছিল।

ঘাতক জওয়ানের নাম কনস্টেবল এস ইনাউচা সিংহ। একে৪৭ রাইফেল দিয়ে তিনি সহকর্মীদের লক্ষ্য করে গুলি ছোড়েন। তার গুলিতে যাদের মৃত্যু হয়েছে, তারা হলেন— থোইবা সিংহ ও জিতেন্দ্র সিংহ।

গুলিতে আরও দুই জওয়ান আহত হয়েছেন। তারা হলেন— কনস্টেবল চোরাজিৎ ও রোহিকানা। প্রত্যেকেই মনিপুরের বাসিন্দা।

তাদের একজনের পেটে এবং অন্যজনের পায়ে গুলি লেগেছে। প্রাথমিকভাবে তাদের পোরবন্দর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাদের নিয়ে যাওয়া হয় জামনগরের একটি হাসপাতালে।

পোরবন্দরে প্রথম পর্যায়ের ভোট হবে ১ ডিসেম্বর। পরবর্তী পর্যায়ের ভোট ৫ ডিসেম্বর। ভোটের ফল জানা যাবে ডিসেম্বরের ৮ তারিখ।

সূত্র: যুগান্তর