সুকেশের কাছ থেকে কী পেয়েছেন, জানালেন জ্যাকুলিন

2
বলিউড সেনসেশন জ্যাকুলিন ফার্নান্দেজের জীবনে সবচেয়ে বাজে সময়টা কাটছে এখন। সপ্তাহে দুই-তিন দিন পুলিশ ও আদালতের দারস্থ হতে হচ্ছে তাকে। গত বুধবার টানা ৬টা জেরার পর সোমবার আবারও দিল্লি পুলিশের মুখোমুখি হতে হয়েছে নায়িকাকে। ধনকুবের সুকেশ চন্দ্রশেখরের কাছ থেকে কী কী উপহার পেয়েছেন সেই হিসাব দিতে ডাকা হয়েছিল তাকে। সোমবার বিকালে মাস্কে মুখ ঢেকে দিল্লি পুলিশের অর্থনৈতিক অপরাধ উইংয়ে হাজির হন জ্যাকুলিন। থমথমে চোখমুখ, পরনে জিনস আর ব্লেজার। গাড়ি থেকে নেমে সোজা ভেতরে প্রবেশ করেন জ্যাকুলিন। সঙ্গে ছিলেন আইনজীবীও। গত বুধবার ২০০ কোটি রুপ পাচার মামলায় জেরা করা হয়েছিল জ্যাকুলিনকে। শুধু জ্যাকুলিন নন, এ মামলার অপর অভিযুক্ত পিঙ্কি ইরানির সঙ্গে মুখোমুখি বসিয়ে জেরা করা হয় জ্যাকুলিনকে। পিঙ্কির সূত্র ধরেই কনম্যান সুকেশের সঙ্গে আলাপ জ্যাকুলিনের। দিল্লি পুলিশ সূত্রে খবর, সোমবার জ্যাকুলিনকে সুকেশের কাছ থেকে প্রাপ্ত উপহারের তালিকা দিতে হয়েছে পুলিশকে। সুকেশের থেকে দামি গাড়ি, প্রাইভেট জেটের খরচ, দামি পোশাক, ব্র্যান্ডেড ব্যাগ থেকে শুরু করে ফরাসি ঘোড়া, বিড়ালের মতো উপহারও পেয়েছেন জ্যাকুলিন। তারই বিস্তারিত হিসাব দিতে হয়েছে পুলিশকে। সুকেশকাণ্ডে গত মাসেই ইডির পক্ষ থেকে দিল্লি হাইকোর্টে পেশ করা সম্পূরক চার্জশিটে অভিযুক্ত তালিকায় নাম উঠেছে জ্যাকুলিনের। এতেই অভিনেত্রীর বিপদ কয়েকগুণ বেড়েছে। অতীতে সুকেশের সঙ্গে প্রেম সম্পর্ক ছিল জ্যাকুলিনের। নিজের মুখে এ কথা জানিয়েছেন জেলবন্দি কনম্যান। দুজনের একাধিক অন্তরঙ্গ ছবি ফাঁস হয়েছে নেটদুনিয়ায়। এ মামলাতে অভিনেত্রী নোরা ফাতেহিকেও জিজ্ঞাসাবাদ করেছে ইডি। তবে নোরার বিরুদ্ধে অভিযোগ হালকা। ফেঁসে যাচ্ছেন জ্যাকুলিন। তার এজেন্ট প্রশান্তকে দামি বাইক উপহার দিয়েছিল সুকেশ। প্রশান্ত পুলিশকে জানিয়েছে জ্যাকুলিনের ঘনিষ্ঠ হতেই এমনটি করেছিলেন তিনি।

নিউজ ডেস্ক: বলিউড সেনসেশন জ্যাকুলিন ফার্নান্দেজের জীবনে সবচেয়ে বাজে সময়টা কাটছে এখন। সপ্তাহে দুই-তিন দিন পুলিশ ও আদালতের দারস্থ হতে হচ্ছে তাকে।
গত বুধবার টানা ৬টা জেরার পর সোমবার আবারও দিল্লি পুলিশের মুখোমুখি হতে হয়েছে নায়িকাকে। ধনকুবের সুকেশ চন্দ্রশেখরের কাছ থেকে কী কী উপহার পেয়েছেন সেই হিসাব দিতে ডাকা হয়েছিল তাকে।

সোমবার বিকালে মাস্কে মুখ ঢেকে দিল্লি পুলিশের অর্থনৈতিক অপরাধ উইংয়ে হাজির হন জ্যাকুলিন। থমথমে চোখমুখ, পরনে জিনস আর ব্লেজার। গাড়ি থেকে নেমে সোজা ভেতরে প্রবেশ করেন জ্যাকুলিন। সঙ্গে ছিলেন আইনজীবীও।

গত বুধবার ২০০ কোটি রুপ পাচার মামলায় জেরা করা হয়েছিল জ্যাকুলিনকে। শুধু জ্যাকুলিন নন, এ মামলার অপর অভিযুক্ত পিঙ্কি ইরানির সঙ্গে মুখোমুখি বসিয়ে জেরা করা হয় জ্যাকুলিনকে। পিঙ্কির সূত্র ধরেই কনম্যান সুকেশের সঙ্গে আলাপ জ্যাকুলিনের।

দিল্লি পুলিশ সূত্রে খবর, সোমবার জ্যাকুলিনকে সুকেশের কাছ থেকে প্রাপ্ত উপহারের তালিকা দিতে হয়েছে পুলিশকে। সুকেশের থেকে দামি গাড়ি, প্রাইভেট জেটের খরচ, দামি পোশাক, ব্র্যান্ডেড ব্যাগ থেকে শুরু করে ফরাসি ঘোড়া, বিড়ালের মতো উপহারও পেয়েছেন জ্যাকুলিন। তারই বিস্তারিত হিসাব দিতে হয়েছে পুলিশকে।

সুকেশকাণ্ডে গত মাসেই ইডির পক্ষ থেকে দিল্লি হাইকোর্টে পেশ করা সম্পূরক চার্জশিটে অভিযুক্ত তালিকায় নাম উঠেছে জ্যাকুলিনের। এতেই অভিনেত্রীর বিপদ কয়েকগুণ বেড়েছে।

অতীতে সুকেশের সঙ্গে প্রেম সম্পর্ক ছিল জ্যাকুলিনের। নিজের মুখে এ কথা জানিয়েছেন জেলবন্দি কনম্যান। দুজনের একাধিক অন্তরঙ্গ ছবি ফাঁস হয়েছে নেটদুনিয়ায়।

এ মামলাতে অভিনেত্রী নোরা ফাতেহিকেও জিজ্ঞাসাবাদ করেছে ইডি। তবে নোরার বিরুদ্ধে অভিযোগ হালকা।

ফেঁসে যাচ্ছেন জ্যাকুলিন। তার এজেন্ট প্রশান্তকে দামি বাইক উপহার দিয়েছিল সুকেশ। প্রশান্ত পুলিশকে জানিয়েছে জ্যাকুলিনের ঘনিষ্ঠ হতেই এমনটি করেছিলেন তিনি।

সূত্র: যুগান্তর