২০ লাখ মানুষকে নিরাপদ আশ্রয়ে সরিয়ে নিয়েছে জাপান

6
জাপানের দিকে ধেয়ে আসছে মহাপ্রলয়ঙ্করী ঘূর্ণিঝড় নানমাদোল। রোববার রাতের দিকে এ সুপার তাইফুন আঘাত হানতে পারে। ভয়ঙ্কর এ প্রলয় থেকে বাঁচাতে জাপানের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগ দেশটির কাগশিমা, কুমামতো, মিয়াজাকি ও দক্ষিণ কিয়োশো থেকে ২০ লাখ মানুষকে নিরাপদ আশ্রয়ে সরিয়ে নিয়েছে। খবর এনএইচকের। জাপানের জাতীয় আবহাওয়া অধিদপ্তর এ ঘূর্ণিঝড়কে 'ধ্বংসাত্মক' হিসেবে উল্লেখ করে দক্ষিণ দিকে থাকা উপকূলীয় লোকজনকে নিরাপদ আশ্রয়ে চলে যাওয়ার জন্য অনুরোধ জানিয়েছে৷ রোববার স্থানীয় সময় রাতে নানমাদোল নামে ঘূর্ণিঝড়টি আঘাত হানবে বলে জানিয়েছে জাপানের গণমাধ্যমগুলো। আবহাওয়া অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, এটি একটি অত্যন্ত শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় এবং এটি স্থলে আঘাত হানার সময় ব্যাপক ধ্বংসলীলা চালাতে পারে৷ তারা কাগোসিমা অঞ্চলে সর্বোচ্চ সতর্কতা জারি করেছে৷ সেখানেই এটি প্রথমে আঘাত হানবে। এর পর এটি জাপানের মূল ভূখণ্ডের দিকে যাবে৷ আবহাওয়া অধিদপ্তর আরও জানিয়েছে, ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে জলোচ্ছ্বাস, বাতাস, অত্যধিক বৃষ্টি ও বজ্রসহ বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে৷ ওকিনাওয়া উপকূলে শনিবার ঘূর্ণিঝড়টির গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ২৭০ কি.মি৷

নিউজ ডেস্ক: জাপানের দিকে ধেয়ে আসছে মহাপ্রলয়ঙ্করী ঘূর্ণিঝড় নানমাদোল। রোববার রাতের দিকে এ সুপার তাইফুন আঘাত হানতে পারে।

ভয়ঙ্কর এ প্রলয় থেকে বাঁচাতে জাপানের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগ দেশটির কাগশিমা, কুমামতো, মিয়াজাকি ও দক্ষিণ কিয়োশো থেকে ২০ লাখ মানুষকে নিরাপদ আশ্রয়ে সরিয়ে নিয়েছে। খবর এনএইচকের।

জাপানের জাতীয় আবহাওয়া অধিদপ্তর এ ঘূর্ণিঝড়কে ‘ধ্বংসাত্মক’ হিসেবে উল্লেখ করে দক্ষিণ দিকে থাকা উপকূলীয় লোকজনকে নিরাপদ আশ্রয়ে চলে যাওয়ার জন্য অনুরোধ জানিয়েছে৷

রোববার স্থানীয় সময় রাতে নানমাদোল নামে ঘূর্ণিঝড়টি আঘাত হানবে বলে জানিয়েছে জাপানের গণমাধ্যমগুলো।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, এটি একটি অত্যন্ত শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় এবং এটি স্থলে আঘাত হানার সময় ব্যাপক ধ্বংসলীলা চালাতে পারে৷

তারা কাগোসিমা অঞ্চলে সর্বোচ্চ সতর্কতা জারি করেছে৷ সেখানেই এটি প্রথমে আঘাত হানবে। এর পর এটি জাপানের মূল ভূখণ্ডের দিকে যাবে৷

আবহাওয়া অধিদপ্তর আরও জানিয়েছে, ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে জলোচ্ছ্বাস, বাতাস, অত্যধিক বৃষ্টি ও বজ্রসহ বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে৷

ওকিনাওয়া উপকূলে শনিবার ঘূর্ণিঝড়টির গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ২৭০ কি.মি৷

সূত্র: যুগান্তর