মাহমুদউল্লাহর স্ত্রীর ক্ষোভের আগুনে ঘি ঢাললেন মুশফিকের স্ত্রী!

15
তরুণদের সুযোগ দিতে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ঠাঁই হচ্ছে না ভেবে অবসরের ঘোষণা দিয়েছেন মুশফিকুর রহিম— ক্রিকেটমহলে এমনটাই গুঞ্জন। যদিও মুশফিক জানিয়েছেন, ওয়ানডে ও টেস্টে আরও বেশি মনোযোগী হতেই টি-টোয়েন্টি ছেড়েছেন। তবে বিশ্বকাপ দল থেকে মাহমুদউল্লাহকে বাদ দেওয়ায় বিষয়টি দর্শকদের কাছে পরিষ্কার যে- ‘বুড়োদের’ ছাটাইয়ে মনোনিবেশ করেছে টিম ম্যানেজমেন্টে। বিসিবির এ সংস্কৃতি এখনও সেভাবে মেনে নিতে পারছেন না দেশের ক্রিকেটপ্রেমীদের বড় একটি অংশ। অভিজ্ঞ মাহমুদউল্লাহকে বাদ দিয়ে আন্তর্জাতিকে তেমন পারফর্ম না করা নাজমুল হোসেন শান্তকে কেন সুযোগ দেওয়া হলো— তা নিয়ে তুমুল সমালোচনার মুখে পড়েছেন নির্বাচকরা। বুধবার দল ঘোষণার পর সেই সমালোচনার বিষবাষ্পকে আরও বাড়িয়ে দেন মাহমুদউল্লাহর স্ত্রী জান্নাতুল কাওসার মিষ্টি। স্বামীকে বাদ দেওয়া মেনে নিতে না পেরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে স্ট্যাটাস দিয়ে ক্ষোভ ঝাড়েন তিনি। আর মিষ্টির ক্ষোভের আগুনে ঘি ঢেলে দেন মুশফিকুর রহিমের স্ত্রী জান্নাতুল কেফায়াত মন্ডি। মাহমুদউল্লাহর বাদ পড়া মেনে নিতে পারেননি মন্ডিও। উল্লেখ্য, পারিবারিক বন্ধনে আবদ্ধ ‘পঞ্চপাণ্ডবের’ দুই অন্যতম তারকা মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও মুশফিকুর রহিম। ২০১১ সালে জান্নাতুল কাওসার মিষ্টিকে বিয়ে করেন মাহমুদউল্লাহ। এর তিন বছর পর মিষ্টির ছোটবোন জান্নাতুল কিফায়াত মন্ডিকে বিয়ে করেন মুশফিকুর রহিম। অর্থাৎ মাহমুদউল্লাহ-মুশফিক দুজন ভায়রা ভাই। বুধবার ফেসবুকে মাহমুদউল্লাহর স্ত্রী মিষ্টি লেখেন, ‘এ দেশে যোগ্য লোকের যোগ্যতার মূল্যায়ন হয় না, হবেও না।’ মন্ডি তার বোনের পোস্টের নিচে কমেন্ট লেখেন, ‘আরে না, তাদের কাছে হার্ডহিটারদের একটি দল আছে। বলে বলে ছয় আর ছয়!’ মাহমুদউল্লাহর স্ত্রীর সেই পোস্টের পর ফেসবুকে বিবিসিকে ঘিরে সমালোচনার ঝড় আরও তীব্রতর হয়। এখন পর্যন্ত ২৯ হাজারের বেশি রি-অ্যাক্ট জমা পড়েছে তাতে। আর মন্ডির কমেন্টে রি-অ্যাক্টের সংখ্যা ২ হাজারের বেশি ছাড়িয়ে যায়। মিষ্টির সেই পোস্টের পর পরই অসংখ্য কমেন্ট আসতে থাকে একের পর এক। এক পর্যায়ে স্ট্যাটাসটির কমেন্ট অপশনই বন্ধ করে দেন মিষ্টি। তবে বৃহস্পতিবার থেকে মন্ডির কমেন্টটি খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। এদিকে মাহমুদউল্লাহর বাদ পড়া নিয়ে ব্যাখ্যা দিয়েছেন প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু। বুধবার তিনি বলেন, ‘মাহমুদউল্লাহর প্রতি শ্রদ্ধা রেখে বলছি, সে আমাদের অনেক ভালো ভালো খেলা উপহার দিয়েছে। আমাদের বর্তমান যে টেকনিক্যাল কনসালট্যান্ট, তিনি এক বছরের যে পরিকল্পনা আমাদের দিয়েছেন, সেটা মাথায় রেখে আমরা এগোচ্ছি। সেই অনুযায়ী টিম ম্যানেজমেন্টের সবার সঙ্গে আলোচনা করে সকলের সম্মতিতে মাহমুদউল্লাহকে বাইরে রাখা হয়েছে।’

নিউজ ডেস্ক: তরুণদের সুযোগ দিতে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ঠাঁই হচ্ছে না ভেবে অবসরের ঘোষণা দিয়েছেন মুশফিকুর রহিম— ক্রিকেটমহলে এমনটাই গুঞ্জন। যদিও মুশফিক জানিয়েছেন, ওয়ানডে ও টেস্টে আরও বেশি মনোযোগী হতেই টি-টোয়েন্টি ছেড়েছেন।

তবে বিশ্বকাপ দল থেকে মাহমুদউল্লাহকে বাদ দেওয়ায় বিষয়টি দর্শকদের কাছে পরিষ্কার যে-  ‘বুড়োদের’ ছাটাইয়ে মনোনিবেশ করেছে টিম ম্যানেজমেন্টে।

বিসিবির এ সংস্কৃতি এখনও সেভাবে মেনে নিতে পারছেন না দেশের ক্রিকেটপ্রেমীদের বড় একটি অংশ।  অভিজ্ঞ মাহমুদউল্লাহকে বাদ দিয়ে আন্তর্জাতিকে তেমন পারফর্ম না করা নাজমুল হোসেন শান্তকে কেন সুযোগ দেওয়া হলো— তা নিয়ে তুমুল সমালোচনার মুখে পড়েছেন নির্বাচকরা।

বুধবার দল ঘোষণার পর সেই সমালোচনার বিষবাষ্পকে আরও বাড়িয়ে দেন মাহমুদউল্লাহর স্ত্রী জান্নাতুল কাওসার মিষ্টি।

স্বামীকে বাদ দেওয়া মেনে নিতে না পেরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে স্ট্যাটাস দিয়ে ক্ষোভ ঝাড়েন তিনি। আর মিষ্টির ক্ষোভের আগুনে ঘি ঢেলে দেন মুশফিকুর রহিমের স্ত্রী জান্নাতুল কেফায়াত মন্ডি। মাহমুদউল্লাহর বাদ পড়া মেনে নিতে পারেননি মন্ডিও।

উল্লেখ্য, পারিবারিক বন্ধনে আবদ্ধ ‘পঞ্চপাণ্ডবের’ দুই অন্যতম তারকা মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও মুশফিকুর রহিম। ২০১১ সালে জান্নাতুল কাওসার মিষ্টিকে বিয়ে করেন মাহমুদউল্লাহ। এর তিন বছর পর মিষ্টির ছোটবোন জান্নাতুল কিফায়াত মন্ডিকে বিয়ে করেন মুশফিকুর রহিম। অর্থাৎ মাহমুদউল্লাহ-মুশফিক দুজন ভায়রা ভাই।

বুধবার ফেসবুকে মাহমুদউল্লাহর স্ত্রী মিষ্টি লেখেন, ‘এ দেশে যোগ্য লোকের যোগ্যতার মূল্যায়ন হয় না, হবেও না।’

মন্ডি তার বোনের পোস্টের নিচে কমেন্ট লেখেন, ‘আরে না, তাদের কাছে হার্ডহিটারদের একটি দল আছে। বলে বলে ছয় আর ছয়!’

মাহমুদউল্লাহর স্ত্রীর সেই পোস্টের পর ফেসবুকে বিবিসিকে ঘিরে সমালোচনার ঝড় আরও তীব্রতর হয়। এখন পর্যন্ত ২৯ হাজারের বেশি রি-অ্যাক্ট জমা পড়েছে তাতে। আর মন্ডির কমেন্টে রি-অ্যাক্টের সংখ্যা ২ হাজারের বেশি ছাড়িয়ে যায়।

মিষ্টির সেই পোস্টের পর পরই অসংখ্য কমেন্ট আসতে থাকে একের পর এক। এক পর্যায়ে স্ট্যাটাসটির কমেন্ট অপশনই বন্ধ করে দেন মিষ্টি। তবে বৃহস্পতিবার থেকে মন্ডির কমেন্টটি খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না।

এদিকে মাহমুদউল্লাহর বাদ পড়া নিয়ে ব্যাখ্যা দিয়েছেন প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু।

বুধবার তিনি বলেন, ‘মাহমুদউল্লাহর প্রতি শ্রদ্ধা রেখে বলছি, সে আমাদের অনেক ভালো ভালো খেলা উপহার দিয়েছে। আমাদের বর্তমান যে টেকনিক্যাল কনসালট্যান্ট, তিনি এক বছরের যে পরিকল্পনা আমাদের দিয়েছেন, সেটা মাথায় রেখে আমরা এগোচ্ছি। সেই অনুযায়ী টিম ম্যানেজমেন্টের সবার সঙ্গে আলোচনা করে সকলের সম্মতিতে মাহমুদউল্লাহকে বাইরে রাখা হয়েছে।’

সূত্র: যুগান্তর