‘বিশ্বরাজনীতি প্রভাবিত করতে ৩০০ মিলিয়ন ডলার ব্যয় করেছে রাশিয়া’

2
২০১৪ সাল থেকে এ পর্যন্ত বিদেশি রাজনৈতিক দল ও প্রার্থীদের পেছনে রাশিয়া অন্তত ৩০০ মিলিয়ন ডলার গোপনে ব্যয় করেছে বলে দাবি যুক্তরাষ্ট্রের। বিশ্বরাজনীতিকে প্রভাবিত করতে ২৪টির বেশি দেশে এই অর্থ ব্যয় করেছে মস্কো। মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা রাশিয়ার ব্যয় করা অর্থের হিসাব সামনে এনেছে। খবর বিবিসির। মঙ্গলবার মার্কিন গোয়ান্দা বিভাগের এক জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তার এক মূল্যায়নে বলা হয়, এখানে সর্বনিম্ন একটা পরিমাণ তুলে ধরা হয়েছে। এ ছাড়া রাশিয়া গোপনে আরও অনেক অর্থ বিদেশ পাঠিয়েছে, যেটির পরিমাণ এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি। পরিচয় গোপন রাখার শর্তে ওই গোয়েন্দা কর্মকর্তা বলেন, আমরা মনে করি- প্রকৃত অর্থের পরিমাণটা আমাদের প্রাপ্ত তথ্যের চেয়েও অনেক বেশি। পর্যবেক্ষণে যুক্তরাষ্ট্রের ওই গোয়েন্দা কর্মকর্তা কোন দেশে মস্কোর এই অর্থ ব্যয় করেছে, তাদের নাম উল্লেখ করেননি। তবে এর আগে যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে— বসনিয়া ও ইকুয়েডরে রাশিয়া তার অর্থনৈতিক শক্তি দিয়ে সরাসরি হস্তক্ষেপ করেছে। মার্কিন গোয়েন্দা কর্মকর্তার ওই মূল্যায়নে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা হিসেবে বলা হয়, রাশিয়ান রাষ্ট্রদূত এশিয়ান একটি দেশের প্রেসিডেন্ট প্রার্থীর পেছনে লাখ লাখ ডলার ব্যয় করেছেন।

নিউজ ডেস্ক: ২০১৪ সাল থেকে এ পর্যন্ত বিদেশি রাজনৈতিক দল ও প্রার্থীদের পেছনে রাশিয়া অন্তত ৩০০ মিলিয়ন ডলার গোপনে ব্যয় করেছে বলে দাবি যুক্তরাষ্ট্রের। বিশ্বরাজনীতিকে প্রভাবিত করতে ২৪টির বেশি দেশে এই অর্থ ব্যয় করেছে মস্কো।

মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা রাশিয়ার ব্যয় করা অর্থের হিসাব সামনে এনেছে। খবর বিবিসির।

মঙ্গলবার মার্কিন গোয়ান্দা বিভাগের এক জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তার এক মূল্যায়নে বলা হয়, এখানে সর্বনিম্ন একটা পরিমাণ তুলে ধরা হয়েছে। এ ছাড়া রাশিয়া গোপনে আরও অনেক অর্থ বিদেশ পাঠিয়েছে, যেটির পরিমাণ এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

পরিচয় গোপন রাখার শর্তে ওই গোয়েন্দা কর্মকর্তা বলেন, আমরা মনে করি- প্রকৃত অর্থের পরিমাণটা আমাদের প্রাপ্ত তথ্যের চেয়েও অনেক বেশি।

পর্যবেক্ষণে যুক্তরাষ্ট্রের ওই গোয়েন্দা কর্মকর্তা কোন দেশে মস্কোর এই অর্থ ব্যয় করেছে, তাদের নাম উল্লেখ করেননি। তবে এর আগে যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে— বসনিয়া ও ইকুয়েডরে রাশিয়া তার অর্থনৈতিক শক্তি দিয়ে সরাসরি হস্তক্ষেপ করেছে।

মার্কিন গোয়েন্দা কর্মকর্তার ওই মূল্যায়নে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা হিসেবে বলা হয়, রাশিয়ান রাষ্ট্রদূত এশিয়ান একটি দেশের প্রেসিডেন্ট প্রার্থীর পেছনে লাখ লাখ ডলার ব্যয় করেছেন।

সূত্র: যুগান্তর