যে ৫ ভুলে পাকিস্তানের বিপক্ষে হারল ভারত

8
এশিয়া কাপের চলতি আসরের শুরুতে গ্রুপপর্বের ম্যাচে রুদ্ধশ্বাস ম্যাচে পাকিস্তানকে হারায় ভারত। সুপার ফোরে সেই ভারতকেই টানটান উত্তেজনাকর ম্যাচে হারিয়ে প্রতিশোধ নেয় পাকিস্তান। পাকিস্তানের বিপক্ষে ভারতের পরাজয়ে ৫ কারণ তুলে ধরেছে ভারতীয় জনপ্রিয় সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস। কম্বিনেশনে গলদ: পাকিস্তানের বিপক্ষে গ্রুপপর্বের ম্যাচে দলের জয়ে অবদান রাখা রবিন্দ্র জাদেজা হাঁটুর চোটের কারণে রোববার খেলতে পারেননি। তার পরিবর্তে দলে নেওয়া হয় দীপক হুডাকে। অথচ তাকে দিয়ে বোলিং করানো হয়নি, তাহলে লোয়ার অর্ডারে বিশেষজ্ঞ ব্যাটসম্যান হিসেবে তাকে কেন নেওয়া হলো? হদার জায়গায় দীনেশ কার্তিক হলে ভালো করতেন। বিকল্প থাকা সত্ত্বেও ষষ্ঠ বোলার ব্যবহার না করা: ষষ্ঠ বোলারের বিকল্প থাকা সত্ত্বেও অধিনায়ক রোহিত শর্মা কেন দীপক হুডাকে বল করতে ডাকলেন না, তার যথাযথ কারণ খুঁজে পাওয়া কঠিন। ঋষভ পন্তের দায়িত্বজ্ঞানহীন শট: একশ রানে পৌঁছানোর আগেই ভারত ৩ উইকেট হারালেও ম্যাচের রাশ ছিল টিম ইন্ডিয়ার হাতেই। কিন্তু ভুল শট খেলে ঋষভ পন্ত আউট হওয়ার পরেই সমস্যা দেখা দেয়। এরপর হার্দিক পান্ডিয়ার উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যায় ভারত। যার প্রভাব পড়ে রান তোলার গতিতে। তা না হলে ভারত দুই শতাধিক রান করতে পারত। যেখানে তারা ১৮১ রানে থামে। ম্যাচের মাঝে পরিকল্পনার অভাব: মোহাম্মদ নওয়াজকে পাকিস্তান কেন উপরের দিকে ব্যাট করতে পাঠিয়েছে, সেটা বুঝতে অসুবিধা হওয়ার কথা নয়। তবে নওয়াজকে আটকানোর জন্য আলাদা কোনো পরিকল্পনা চোখে পড়েনি ভারতীয় দলের মধ্যে। নওয়াজকে হালকাভাবে নেওয়ার মাশুল দিতে হয় ভারতকে। গুরুত্বপূর্ণ সময়ে ক্যাচ ছাড়া: ম্যাচের একেবারে শেষ মুহূর্তে অর্শদীপ সিং আসিফ আলীর যে সহজ ক্যাচটি ছাড়েন, তারও প্রভাব পড়ে ম্যাচে। এমন হাই-ভোল্টেজ ম্যাচে এমন সুযোগ হাতছাড়া মানেই ম্যাচ হারা।

নিউজ ডেস্ক: এশিয়া কাপের চলতি আসরের শুরুতে গ্রুপপর্বের ম্যাচে রুদ্ধশ্বাস ম্যাচে পাকিস্তানকে হারায় ভারত। সুপার ফোরে সেই ভারতকেই টানটান উত্তেজনাকর ম্যাচে হারিয়ে প্রতিশোধ নেয় পাকিস্তান।

পাকিস্তানের বিপক্ষে ভারতের পরাজয়ে ৫ কারণ তুলে ধরেছে ভারতীয় জনপ্রিয় সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস।

কম্বিনেশনে গলদ: পাকিস্তানের বিপক্ষে গ্রুপপর্বের ম্যাচে দলের জয়ে অবদান রাখা রবিন্দ্র জাদেজা হাঁটুর চোটের কারণে রোববার খেলতে পারেননি। তার পরিবর্তে দলে নেওয়া হয় দীপক হুডাকে। অথচ তাকে দিয়ে বোলিং করানো হয়নি, তাহলে লোয়ার অর্ডারে বিশেষজ্ঞ ব্যাটসম্যান হিসেবে তাকে কেন নেওয়া হলো? হদার জায়গায় দীনেশ কার্তিক হলে ভালো করতেন।

বিকল্প থাকা সত্ত্বেও ষষ্ঠ বোলার ব্যবহার না করা: ষষ্ঠ বোলারের বিকল্প থাকা সত্ত্বেও অধিনায়ক রোহিত শর্মা কেন দীপক হুডাকে বল করতে ডাকলেন না, তার যথাযথ কারণ খুঁজে পাওয়া কঠিন।

ঋষভ পন্তের দায়িত্বজ্ঞানহীন শট: একশ রানে পৌঁছানোর আগেই ভারত ৩ উইকেট হারালেও ম্যাচের রাশ ছিল টিম ইন্ডিয়ার হাতেই। কিন্তু ভুল শট খেলে ঋষভ পন্ত আউট হওয়ার পরেই সমস্যা দেখা দেয়। এরপর হার্দিক পান্ডিয়ার উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যায় ভারত। যার প্রভাব পড়ে রান তোলার গতিতে। তা না হলে ভারত দুই শতাধিক রান করতে পারত। যেখানে তারা ১৮১ রানে থামে।

ম্যাচের মাঝে পরিকল্পনার অভাব: মোহাম্মদ নওয়াজকে পাকিস্তান কেন উপরের দিকে ব্যাট করতে পাঠিয়েছে, সেটা বুঝতে অসুবিধা হওয়ার কথা নয়। তবে নওয়াজকে আটকানোর জন্য আলাদা কোনো পরিকল্পনা চোখে পড়েনি ভারতীয় দলের মধ্যে। নওয়াজকে হালকাভাবে নেওয়ার মাশুল দিতে হয় ভারতকে।

গুরুত্বপূর্ণ সময়ে ক্যাচ ছাড়া: ম্যাচের একেবারে শেষ মুহূর্তে অর্শদীপ সিং আসিফ আলীর যে সহজ ক্যাচটি ছাড়েন, তারও প্রভাব পড়ে ম্যাচে। এমন হাই-ভোল্টেজ ম্যাচে এমন সুযোগ হাতছাড়া মানেই ম্যাচ হারা।

সূত্র: যুগান্তর