সার্ভার হ্যাক করে ৮ শতাধিক ভুয়া জন্ম সনদ তৈরি!

3
শরীয়তপুর জেলার নড়িয়া উপজেলার বিঝারী ইউনিয়ন পরিষদ ও ফতেহজঙ্গপুর ইউনিয়নের পাসওয়ার্ড হ্যাক করে প্রায় ৮ আট শতাধিক ভুয়া জন্ম নিবন্ধন করার অভিযোগ উঠেছে। বিষয়টি জানার পর চেয়ারম্যান ও সচিবরা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন। পাশাপাশি নড়িয়া থানায় সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে। এ দুটি ইউনিয়নের আইডি স্থগিত করেছেন জেলা স্থানীয় সরকার বিভাগ। বিঝারী ইউনিয়নের সচিব মলিনা নাসরিন ও উদ্যোক্তা মুক্তা রানী জানার, গত ১৫ আগস্ট বিকালে বিঝারী ইউনিয়ন পরিষদের সচিব মলিনা নাসরিনের ইমেইলে মো. হাসান ইসলাম নামের একটি আইডি থেকে মেসেজ আসে। সেখানে সদিয়া, পাঁচলীপাড়া, কটিয়াদি কিশোরগঞ্জের একটি জন্ম নিবন্ধন রেজিস্ট্রেশন করা হয়। এরপর সচিব বিষয়টি টের পান এবং তাদের ইউনিয়নের আইডি ও পাসওয়ার্ড হ্যাক করে ৩৯২ জনের নামে ভুয়া জন্ম নিবন্ধন রেজিস্ট্রেশন করা হয়েছে। অন্যদিকে একই উপজেলার ফতেহজঙ্গপুর ইউনিয়নের আইডি হ্যাক করে প্রায় ২৬০ নতুন জন্ম নিবন্ধন রেজিস্ট্রেশন করে ফেলে। বিঝারী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলী আহাম্মদ কাজী, আমরা বিষয়টি জানতে পেরে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য ইউএন বরাবর দরখাস্ত দিয়েছি। ফতেজঙ্গপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শওকত হোসেন জুয়েল বলেন, আমি এ বিষয়ে শরীয়তপুর জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের স্থানীয় সরকার শাখাকে বিষয়টির প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের অনুরোধ করেছি। নড়িয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ রাশেদুজ্জামান বলেন, বিষয়টি জানতে পেরে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য শরীয়তপুর স্থানীয় সরকার শাখায় জানিয়েছি।

নিউজ ডেস্ক: শরীয়তপুর জেলার নড়িয়া উপজেলার বিঝারী ইউনিয়ন পরিষদ ও ফতেহজঙ্গপুর ইউনিয়নের পাসওয়ার্ড হ্যাক করে প্রায় ৮ আট শতাধিক ভুয়া জন্ম নিবন্ধন করার অভিযোগ উঠেছে।

বিষয়টি জানার পর চেয়ারম্যান ও সচিবরা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন। পাশাপাশি নড়িয়া থানায় সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে। এ দুটি ইউনিয়নের আইডি স্থগিত করেছেন জেলা স্থানীয় সরকার বিভাগ।

বিঝারী ইউনিয়নের সচিব মলিনা নাসরিন ও উদ্যোক্তা মুক্তা রানী জানার, গত ১৫ আগস্ট বিকালে বিঝারী ইউনিয়ন পরিষদের সচিব মলিনা নাসরিনের ইমেইলে মো. হাসান ইসলাম নামের একটি আইডি থেকে মেসেজ আসে। সেখানে সদিয়া, পাঁচলীপাড়া, কটিয়াদি কিশোরগঞ্জের একটি জন্ম নিবন্ধন রেজিস্ট্রেশন করা হয়।

এরপর সচিব বিষয়টি টের পান এবং তাদের ইউনিয়নের আইডি ও পাসওয়ার্ড হ্যাক করে ৩৯২ জনের নামে ভুয়া জন্ম নিবন্ধন রেজিস্ট্রেশন করা হয়েছে।

অন্যদিকে একই উপজেলার ফতেহজঙ্গপুর ইউনিয়নের আইডি হ্যাক করে প্রায় ২৬০ নতুন জন্ম নিবন্ধন রেজিস্ট্রেশন করে ফেলে।

বিঝারী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলী আহাম্মদ কাজী, আমরা বিষয়টি জানতে পেরে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য ইউএন বরাবর দরখাস্ত দিয়েছি।

ফতেজঙ্গপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শওকত হোসেন জুয়েল বলেন, আমি এ বিষয়ে শরীয়তপুর জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের স্থানীয় সরকার শাখাকে বিষয়টির প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের অনুরোধ করেছি।

নড়িয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ রাশেদুজ্জামান বলেন, বিষয়টি জানতে পেরে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য শরীয়তপুর স্থানীয় সরকার শাখায় জানিয়েছি।

সূত্র: যুগান্তর