বিসিবির সিদ্ধান্তে যা বললেন ডমিঙ্গো

5
আসন্ন টি-২০ ক্রিকেটের কোচের দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে রাসেল ডমিঙ্গোকে। তার জায়গায় প্রথমে ‘টেকনিক্যাল কনসালট্যান্ট’ এবং পরে হেড কোচ হিসেবে দায়িত্ব তুলে দেওয়া হয়েছে ভারতীয় বংশোদ্ভূত অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী শ্রীধরন শ্রীরামকে। এখন থেকে শুধু টেস্ট আর ওয়ানডে ক্রিকেটে বাংলাদেশ দলকে দেখভাল করার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে ডমিঙ্গোকে। তবে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) এই সিদ্ধান্ত নিয়ে খুশি ডমিঙ্গো। ডমিঙ্গো বিসিবির সিদ্ধান্ত সাদরেই গ্রহণ করেছেন। সোমবার সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে কোচদের নিয়ে সিদ্ধান্তের কথা জানান বিসিবিপ্রধান নাজমুল হাসান পাপন। টি-টোয়েন্টির নতুন টেকনিক্যাল কনসালট্যান্ট শ্রীধরন শ্রীরামের দায়িত্ব ও রাসেল ডমিঙ্গোর নতুন ভূমিকা নিয়ে বিস্তারিত জানান বিসিবিপ্রধান। বিসিবিপ্রধানের সঙ্গে এ সময় উপস্থিত ছিলেন রাসেল ডমিঙ্গো। তিনি জানান, বিসিবির সিদ্ধান্তে নারাজ নন তিনি। বরং সাফল্য পাওয়ার আশায় নতুন পথ বেছে নেওয়াকে ইতিবাচক মনে করেন তিনি। ডমিঙ্গো বলেন, ‘আমার মনে হয়, এটি দারুণ একটা আইডিয়া। এটি আমাকে টেস্ট ম্যাচ ও ৫০ ওভারের ক্রিকেটে আরও বেশি মনোযোগ দেওয়ার সুযোগ করে দেবে। টি-টোয়েন্টিতে আমাদের দারুণ কিছু ফল আছে, বাজে ফলও আছে কিছু। আমার মনে হয় না, এই সংস্করণে নতুন পন্থা খারাপ কোনো আইডিয়া। এ ব্যাপারে আমার মন খুবই খোলা। এটা আমার দল নিয়ে নয়, আমাকে নিয়ে নয়; আমি এখানে দলকে আরও ভালো অবস্থায় নেওয়ার জন্য।’ এ ফরম্যাট থেকে সরিয়ে দেওয়ায় বাকি দুটিতে আরও বেশি সময় দেওয়ার সুযোগ পাবেন বলে জানালেন ডমিঙ্গো, ‘এটি আমাকে আসন্ন ৫০ ওভারের বিশ্বকাপ নিয়ে আরও পরিষ্কারভাবে ভাবার সুযোগ করে দেবে। আমরা জানি, টেস্ট দলকে নিয়ে অনেক কাজ করতে হবে। এটি আমাকে পরিবারের সঙ্গে কিছুটা সময় কাটানোরও সুযোগ করে দেবে। গত বছর আমি কেবল পাঁচ সপ্তাহ বাড়ি থাকতে পেরেছিলাম। পরিবার আমার কাছে খুব গুরুত্বপূর্ণ। এভাবে টিকে থাকা খুব কঠিন, টুর্নামেন্টে সতেজ হয়ে আসা, ভালো মনোভাব নিয়ে আসা খুব কঠিন।’

নিউজ ডেস্ক: আসন্ন টি-২০ ক্রিকেটের কোচের দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে রাসেল ডমিঙ্গোকে। তার জায়গায় প্রথমে ‘টেকনিক্যাল কনসালট্যান্ট’ এবং পরে হেড কোচ হিসেবে দায়িত্ব তুলে দেওয়া হয়েছে ভারতীয় বংশোদ্ভূত অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী শ্রীধরন শ্রীরামকে।

এখন থেকে শুধু টেস্ট আর ওয়ানডে ক্রিকেটে বাংলাদেশ দলকে দেখভাল করার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে ডমিঙ্গোকে। তবে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) এই সিদ্ধান্ত নিয়ে খুশি ডমিঙ্গো। ডমিঙ্গো বিসিবির সিদ্ধান্ত সাদরেই গ্রহণ করেছেন।

সোমবার সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে কোচদের নিয়ে সিদ্ধান্তের কথা জানান বিসিবিপ্রধান নাজমুল হাসান পাপন। টি-টোয়েন্টির নতুন টেকনিক্যাল কনসালট্যান্ট শ্রীধরন শ্রীরামের দায়িত্ব ও রাসেল ডমিঙ্গোর নতুন ভূমিকা নিয়ে বিস্তারিত জানান বিসিবিপ্রধান।

বিসিবিপ্রধানের সঙ্গে এ সময় উপস্থিত ছিলেন রাসেল ডমিঙ্গো। তিনি জানান, বিসিবির সিদ্ধান্তে নারাজ নন তিনি। বরং সাফল্য পাওয়ার আশায় নতুন পথ বেছে নেওয়াকে ইতিবাচক মনে করেন তিনি।

ডমিঙ্গো বলেন, ‘আমার মনে হয়, এটি দারুণ একটা আইডিয়া। এটি আমাকে টেস্ট ম্যাচ ও ৫০ ওভারের ক্রিকেটে আরও বেশি মনোযোগ দেওয়ার সুযোগ করে দেবে। টি-টোয়েন্টিতে আমাদের দারুণ কিছু ফল আছে, বাজে ফলও আছে কিছু। আমার মনে হয় না, এই সংস্করণে নতুন পন্থা খারাপ কোনো আইডিয়া। এ ব্যাপারে আমার মন খুবই খোলা। এটা আমার দল নিয়ে নয়, আমাকে নিয়ে নয়; আমি এখানে দলকে আরও ভালো অবস্থায় নেওয়ার জন্য।’

এ ফরম্যাট থেকে সরিয়ে দেওয়ায় বাকি দুটিতে আরও বেশি সময় দেওয়ার সুযোগ পাবেন বলে জানালেন ডমিঙ্গো, ‘এটি আমাকে আসন্ন ৫০ ওভারের বিশ্বকাপ নিয়ে আরও পরিষ্কারভাবে ভাবার সুযোগ করে দেবে। আমরা জানি, টেস্ট দলকে নিয়ে অনেক কাজ করতে হবে। এটি আমাকে পরিবারের সঙ্গে কিছুটা সময় কাটানোরও সুযোগ করে দেবে। গত বছর আমি কেবল পাঁচ সপ্তাহ বাড়ি থাকতে পেরেছিলাম। পরিবার আমার কাছে খুব গুরুত্বপূর্ণ। এভাবে টিকে থাকা খুব কঠিন, টুর্নামেন্টে সতেজ হয়ে আসা, ভালো মনোভাব নিয়ে আসা খুব কঠিন।’

সূত্র: যুগান্তর