মালদ্বীপের হেড কোচ হলেন বাংলাদেশের সাবেক তারকা ক্রিকেটার

11
সুসংবাদ ভেসে এলো বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট। মালদ্বীপ জাতীয় নারী ক্রিকেট দলের প্রধান কোচ হলেন বাংলাদেশ জাতীয় নারী দলের সাবেক ক্রিকেটার ফাতেমা তুজ জোহরা। ফাতেমাকে কোচ হিসেবে নিয়োগের সত্যতা নিশ্চিত করেছে মালদ্বীপ ক্রিকেট বোর্ড। নিজেদের সোশ্যাল মিডিয়া পেজ ক্রিকেট বোর্ড অব মালদিভসে তিনটি ছবি পোস্ট করেছেন তারা। যেখানে একটি ছবিতে মালদ্বীপের ক্রীড়ামন্ত্রী আহমেদ মাহলুফের সঙ্গে হাস্যোজ্জ্বল ফাতেমাকে দেখা গেছে। আরেকটি ছবিতে দেখা যাচ্ছে দুজনে চুক্তিপত্রে সই করছেন। ছবিগুলের ক্যাপশনে লেখা হয়েছে, ‘আমাদের নারী ক্রিকেট দলের নতুন কোচ মিসেস ফাতেমা তুজ জোহরাকে স্বাগতম।’ সাভারের বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের (বিকেএসপি) নারী ক্রিকেটারদের কোচ ছিলেন ফাতেমা। মালদ্বীপ দলের কোচ হয়ে এবার সেই ক্যারিয়ারের আন্তর্জাতিক দৃশ্যপটে যুক্ত হলেন তিনি। তবে আন্তর্জাতিকের পথটা সহজ হবে না ফাতেমার। নতুন আর আনকোরা একটা দল নিয়ে কাজ করতে হবে তাকে। মালদ্বীপ নারী ক্রিকেট দলের যাত্রা সবে শুরু হয়েছে। মাত্র তিনটি আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছে তারা। কোচ ছাড়াও আম্পায়ারিংয়ে অভিজ্ঞতা রয়েছে ফাতেমার। ২০১৫ সালে নারীদের প্রথম বিভাগ ক্রিকেটে আম্পায়ারিং করেন তিনি। আইসিসি লেভেল-২ আম্পায়ারিং কোর্স এবং সিএ কোর্স করা রয়েছে তার।

নিউজ ডেস্ক: সুসংবাদ ভেসে এলো বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট। মালদ্বীপ জাতীয় নারী ক্রিকেট দলের প্রধান কোচ হলেন বাংলাদেশ জাতীয় নারী দলের সাবেক ক্রিকেটার ফাতেমা তুজ জোহরা।

ফাতেমাকে কোচ হিসেবে নিয়োগের সত্যতা নিশ্চিত করেছে মালদ্বীপ ক্রিকেট বোর্ড।

নিজেদের সোশ্যাল মিডিয়া পেজ ক্রিকেট বোর্ড অব মালদিভসে তিনটি ছবি পোস্ট করেছেন তারা।  যেখানে একটি ছবিতে মালদ্বীপের ক্রীড়ামন্ত্রী আহমেদ মাহলুফের সঙ্গে হাস্যোজ্জ্বল ফাতেমাকে দেখা গেছে। আরেকটি ছবিতে দেখা যাচ্ছে দুজনে চুক্তিপত্রে সই করছেন।

ছবিগুলের ক্যাপশনে লেখা হয়েছে, ‘আমাদের নারী ক্রিকেট দলের নতুন কোচ মিসেস ফাতেমা তুজ জোহরাকে স্বাগতম।’

সাভারের বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের (বিকেএসপি) নারী ক্রিকেটারদের কোচ ছিলেন ফাতেমা। মালদ্বীপ দলের কোচ হয়ে এবার সেই ক্যারিয়ারের আন্তর্জাতিক দৃশ্যপটে যুক্ত হলেন তিনি।

 

তবে আন্তর্জাতিকের পথটা সহজ হবে না ফাতেমার। নতুন আর আনকোরা একটা দল নিয়ে কাজ করতে হবে তাকে।

মালদ্বীপ নারী ক্রিকেট দলের যাত্রা সবে শুরু হয়েছে। মাত্র তিনটি আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছে তারা।

কোচ ছাড়াও আম্পায়ারিংয়ে অভিজ্ঞতা রয়েছে ফাতেমার। ২০১৫ সালে নারীদের প্রথম বিভাগ ক্রিকেটে আম্পায়ারিং করেন তিনি। আইসিসি লেভেল-২ আম্পায়ারিং কোর্স এবং সিএ কোর্স করা রয়েছে তার।

সূত্র: যুগান্তর