আকাশ পথ নিয়ে ওমানের সিদ্ধান্তে বিপাকে ইসরাইল

12
দখলদার ইসরাইলের বিমানের জন্য আকাশ উন্মুক্ত করতে রাজি হয়নি ওমান। ইহুদিবাদী ইসরাইল ইস্যুতে সৌদি আরবের নীতি অন্ধভাবে অনুসরণ করতে চাইছে না দেশটি। প্রেস টিভির প্রতিবেদন অনুযায়ী ইসরাইলি গণমাধ্যমের বরাত দিয়ে রাশিয়া টুডে জানায়, ওমানের সুলতান ইসরাইলি বিমানের জন্য তার দেশের আকাশসীমা খুলে দেওয়ার পক্ষে মত দেননি। ওমানের আকাশসীমা ব্যবহার করতে পারলে ইসরাইলি বিমানের জন্য দূরপ্রাচ্যের দেশগুলোর দূরত্ব অনেক কমে আসবে। কিন্তু ওমানের আকাশসীমা খুলে না দেওয়ার সিদ্ধান্ত ইসরাইলকে এখন বেশ বিপাকে ফেলেছে। ওমানের আকাশসীমা খুলে দেওয়া ইসরাইলের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ এই কারণে যে, সৌদি আরবের আকাশসীমা খুলে দেওয়ার পরেও ওমানের আকাশ উন্মুক্ত না হলে ভারত মহাসাগরের আকাশে ইসরায়েলি বিমানের প্রবেশ সহজ হবে না। সেক্ষেত্রে সৌদির আকাশ ব্যবহারের বিশেষ সুবিধা নিতে পারবে না ইসরাইলের ফ্লাইটগুলো। ওমানের আকাশসীমা খুলে না দিলে ইসরাইল বিমানগুলোকে ইয়েমেনের আকাশ পাড়ি দিতে হবে যার আপাতত সম্ভাবনাই নেই। রাশিয়া টুডের রিপোর্টে বলা হয়েছে- ইসরায়েলের সঙ্গে ওমানের এরইমধ্যে সম্পর্ক প্রতিষ্ঠা হয়েছে কিন্তু বিমান যোগাযোগ প্রতিষ্ঠিত হয়নি। তেল আবিব অন্যান্য পারস্য উপসাগরীয় আরব দেশগুলোর মতো ওমানের সঙ্গেও সম্পর্ক স্বাভাবিককরণের জন্য মার্কিন-সমর্থিত প্রচেষ্টা জোরদার করেছে।

নিউজ ডেস্ক: দখলদার ইসরাইলের বিমানের জন্য আকাশ উন্মুক্ত করতে রাজি হয়নি ওমান। ইহুদিবাদী ইসরাইল ইস্যুতে সৌদি আরবের নীতি অন্ধভাবে অনুসরণ করতে চাইছে না দেশটি।

প্রেস টিভির প্রতিবেদন অনুযায়ী ইসরাইলি গণমাধ্যমের বরাত দিয়ে রাশিয়া টুডে জানায়, ওমানের সুলতান ইসরাইলি বিমানের জন্য তার দেশের আকাশসীমা খুলে দেওয়ার পক্ষে মত দেননি।

ওমানের আকাশসীমা ব্যবহার করতে পারলে ইসরাইলি বিমানের জন্য দূরপ্রাচ্যের দেশগুলোর দূরত্ব অনেক কমে আসবে। কিন্তু ওমানের আকাশসীমা খুলে না দেওয়ার সিদ্ধান্ত ইসরাইলকে এখন বেশ বিপাকে ফেলেছে।

ওমানের আকাশসীমা খুলে দেওয়া ইসরাইলের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ এই কারণে যে, সৌদি আরবের আকাশসীমা খুলে দেওয়ার পরেও ওমানের আকাশ উন্মুক্ত না হলে ভারত মহাসাগরের আকাশে ইসরায়েলি বিমানের প্রবেশ সহজ হবে না।

সেক্ষেত্রে সৌদির আকাশ ব্যবহারের বিশেষ সুবিধা নিতে পারবে না ইসরাইলের ফ্লাইটগুলো। ওমানের আকাশসীমা খুলে না দিলে ইসরাইল বিমানগুলোকে ইয়েমেনের আকাশ পাড়ি দিতে হবে যার আপাতত সম্ভাবনাই নেই।

রাশিয়া টুডের রিপোর্টে বলা হয়েছে- ইসরায়েলের সঙ্গে ওমানের এরইমধ্যে সম্পর্ক প্রতিষ্ঠা হয়েছে কিন্তু বিমান যোগাযোগ প্রতিষ্ঠিত হয়নি।

তেল আবিব অন্যান্য পারস্য উপসাগরীয় আরব দেশগুলোর মতো ওমানের সঙ্গেও সম্পর্ক স্বাভাবিককরণের জন্য মার্কিন-সমর্থিত প্রচেষ্টা জোরদার করেছে।

সূত্র: যুগান্তর