বিদায় বার্মিংহাম দেখা হবে ভিক্টোরিয়ায়

9
ভাঙল মিলনমেলা। নিভে গেল আলো। ২৮ জুলাই গ্র্যান্ড ক্যানেলের তীরে যে উৎসবের ঢেউ আছড়ে পড়েছিল, তার যবনিকাপাত ঘটল মঙ্গলবার। পর্দা নামল বার্মিংহাম কমনওয়েলথ গেমসের। বিদায় বার্মিংহাম। দেখা হবে ভিক্টোরিয়ায়। আলেকজান্ডার স্টেডিয়ামে সমাপনী অনুষ্ঠানে রক সংগীতের সঙ্গে ছিল বার্মিংহামের পারফরমারদের অনুপম শৈল্পিক প্রদর্শনী। ‘সবার জন্য খেলা’ স্লোগানে শুরু হওয়া গেমসের সফল সমাপ্তি হলো। পারস্পরিক সৌহার্দ্য ও সম্প্রীতির সেতুবন্ধ তৈরি করে গেমসে অংশ নেওয়া ৫০০০ ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব হয়ে উঠেছিলেন এক অভিন্ন পরিবারের সদস্য। শুধু খেলার মাঠে নয়, সৌহার্দ্যরে সুর ছড়িয়ে পড়েছে ৭২টি দেশে। সমাপনী অনুষ্ঠানজুড়ে তরুণরা ছিলেন উৎসবের প্রাণ। শুরুতেই ঘোষণা করা হয়, ‘আবার আমরা এখানে সমবেত হয়েছি। যে যেখানেই থাকুন, সবাইকে স্বাগত জানাই আজকের এই আয়োজনে।’ ইংল্যান্ডের তারকাশিল্পীদের গান মন্ত্রমুগ্ধ করে রাখে দর্শকদের। সাংস্কৃতিক পরিবেশনায় উদ্বেলিত আলেকজান্ডার। ছোট-বড় নানা সামাজিক সমস্যা মোকাবিলায় দৃপ্তকণ্ঠে বিশ্ববাসীকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান ছিল সমাপনী দিনে। আয়োজকদের বক্তৃতা-বিবৃতির পাশাপাশি নাচ-গানের অনবদ্য পরিবেশনায় উন্মাতাল হয়ে ওঠে আলেকজান্ডার স্টেডিয়াম। সমাপনী অনুষ্ঠানের মার্চপাস্টে বাংলাদেশের পতাকা বহন করেন হাইজাম্পার মাহফুজুর রহমান। এদিন লাল-সবুজের কুস্তি, বক্সিং ও অ্যাথলেটিক্স দল মার্চপাস্টে অংশ নেয়। দলের অন্য ডিসিপ্লিনের সদস্যদের কেউ ফিরে গেছেন ঢাকায়। কেউ কোনিয়ায়, তুরস্কে শুরু হওয়া ইসলামিক সলিডারিটি গেমসে অংশে নিতে গেছেন। কমনওয়েলথের পতাকা ভিক্টোরিয়ার মেয়রের হাতে তুলে দেওয়ার মধ্য দিয়ে শেষ হলো গেমস। আনন্দঘন উদ্বোধনের পর বেদনার সুর ছড়িয়ে পর্দা নামল ২২তম কমনওয়েলথ গেমসের। সম্প্রীতির এক অনন্য নজির স্থাপন করে ১২ দিনের এই ক্রীড়াযজ্ঞে পদক তালিকার শীর্ষস্থান বজায় রেখেছে অস্ট্রেলিয়া। যদিও গোল্ডকোস্টে পাওয়া ৮০টি স্বর্ণপদক ধরে রাখতে পারেনি শীর্ষদলটি। ৬৬টি স্বর্ণ। ছেলেদের ২১ স্বর্ণের বিপরীতে অস্ট্রেলিয়ার মেয়েরা জিতেছে ডাবল (৪৩টি) স্বর্ণ। ৫৭ রুপা ও ৫৪ ব্রোঞ্জ নিয়ে অসিদের দখলে ১৭৭ পদক। স্বাগতিকরা শীর্ষস্থান দখলের জন্য দারুণ লড়াই করেছিল। নিজেদের মাঠে পদক সংখ্যা বাড়াতে পেরেছে ইংল্যান্ড। গত আসরে তাদের অর্জন ছিল ৪৫টি স্বর্ণ। এবার ৫৬টি স্বর্ণের সঙ্গে ৬৪ রুপা ও ৫৩ ব্রোঞ্জ নিয়ে ইংল্যান্ডের অর্জন ১৭৩ পদক। ভারতকে হটিয়ে (২২ স্বর্ণ) কানাডা উঠে এসেছে তৃতীয় (২৬ স্বর্ণ) স্থানে। গোল্ডকোস্টে বাংলাদেশ দুটি রুপা নিয়ে পদকজয়ী ৪৩ দেশের মধ্যে ৩০তম হয়েছিল। এবার ফিরল খালি হাতে।

নিউজ ডেস্ক: ভাঙল মিলনমেলা। নিভে গেল আলো। ২৮ জুলাই গ্র্যান্ড ক্যানেলের তীরে যে উৎসবের ঢেউ আছড়ে পড়েছিল, তার যবনিকাপাত ঘটল মঙ্গলবার। পর্দা নামল বার্মিংহাম কমনওয়েলথ গেমসের। বিদায় বার্মিংহাম। দেখা হবে ভিক্টোরিয়ায়। আলেকজান্ডার স্টেডিয়ামে সমাপনী অনুষ্ঠানে রক সংগীতের সঙ্গে ছিল বার্মিংহামের পারফরমারদের অনুপম শৈল্পিক প্রদর্শনী।

‘সবার জন্য খেলা’ স্লোগানে শুরু হওয়া গেমসের সফল সমাপ্তি হলো। পারস্পরিক সৌহার্দ্য ও সম্প্রীতির সেতুবন্ধ তৈরি করে গেমসে অংশ নেওয়া ৫০০০ ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব হয়ে উঠেছিলেন এক অভিন্ন পরিবারের সদস্য। শুধু খেলার মাঠে নয়, সৌহার্দ্যরে সুর ছড়িয়ে পড়েছে ৭২টি দেশে। সমাপনী অনুষ্ঠানজুড়ে তরুণরা ছিলেন উৎসবের প্রাণ। শুরুতেই ঘোষণা করা হয়, ‘আবার আমরা এখানে সমবেত হয়েছি। যে যেখানেই থাকুন, সবাইকে স্বাগত জানাই আজকের এই আয়োজনে।’

ইংল্যান্ডের তারকাশিল্পীদের গান মন্ত্রমুগ্ধ করে রাখে দর্শকদের। সাংস্কৃতিক পরিবেশনায় উদ্বেলিত আলেকজান্ডার। ছোট-বড় নানা সামাজিক সমস্যা মোকাবিলায় দৃপ্তকণ্ঠে বিশ্ববাসীকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান ছিল সমাপনী দিনে। আয়োজকদের বক্তৃতা-বিবৃতির পাশাপাশি নাচ-গানের অনবদ্য পরিবেশনায় উন্মাতাল হয়ে ওঠে আলেকজান্ডার স্টেডিয়াম।

সমাপনী অনুষ্ঠানের মার্চপাস্টে বাংলাদেশের পতাকা বহন করেন হাইজাম্পার মাহফুজুর রহমান। এদিন লাল-সবুজের কুস্তি, বক্সিং ও অ্যাথলেটিক্স দল মার্চপাস্টে অংশ নেয়। দলের অন্য ডিসিপ্লিনের সদস্যদের কেউ ফিরে গেছেন ঢাকায়। কেউ কোনিয়ায়, তুরস্কে শুরু হওয়া ইসলামিক সলিডারিটি গেমসে অংশে নিতে গেছেন। কমনওয়েলথের পতাকা ভিক্টোরিয়ার মেয়রের হাতে তুলে দেওয়ার মধ্য দিয়ে শেষ হলো গেমস। আনন্দঘন উদ্বোধনের পর বেদনার সুর ছড়িয়ে পর্দা নামল ২২তম কমনওয়েলথ গেমসের।

সম্প্রীতির এক অনন্য নজির স্থাপন করে ১২ দিনের এই ক্রীড়াযজ্ঞে পদক তালিকার শীর্ষস্থান বজায় রেখেছে অস্ট্রেলিয়া। যদিও গোল্ডকোস্টে পাওয়া ৮০টি স্বর্ণপদক ধরে রাখতে পারেনি শীর্ষদলটি। ৬৬টি স্বর্ণ। ছেলেদের ২১ স্বর্ণের বিপরীতে অস্ট্রেলিয়ার মেয়েরা জিতেছে ডাবল (৪৩টি) স্বর্ণ। ৫৭ রুপা ও ৫৪ ব্রোঞ্জ নিয়ে অসিদের দখলে ১৭৭ পদক। স্বাগতিকরা শীর্ষস্থান দখলের জন্য দারুণ লড়াই করেছিল। নিজেদের মাঠে পদক সংখ্যা বাড়াতে পেরেছে ইংল্যান্ড। গত আসরে তাদের অর্জন ছিল ৪৫টি স্বর্ণ। এবার ৫৬টি স্বর্ণের সঙ্গে ৬৪ রুপা ও ৫৩ ব্রোঞ্জ নিয়ে ইংল্যান্ডের অর্জন ১৭৩ পদক। ভারতকে হটিয়ে (২২ স্বর্ণ) কানাডা উঠে এসেছে তৃতীয় (২৬ স্বর্ণ) স্থানে। গোল্ডকোস্টে বাংলাদেশ দুটি রুপা নিয়ে পদকজয়ী ৪৩ দেশের মধ্যে ৩০তম হয়েছিল। এবার ফিরল খালি হাতে।

সূত্র: যুগান্তর