তাইওয়ান ঘিরে চীনের মহড়ায় বাইডেনের উদ্বেগ

4
তাইওয়ানের চারদিক ঘিরে ফেলে সোমবার থেকে চীন নতুন করে যে সামরিক মহড়ায় শুরু করেছে, তাতে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। যুক্তরাষ্ট্রের হাউজ স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি গত মঙ্গলবার তাইওয়ান সফরে আসেন। এর প্রতিবাদে তাইওয়ানের চারপাশে সামরিক মহড়া চালাচ্ছে চীন। বাইডেন তার দেলাওয়ারের বাসভবনে সোমবার সাংবাদিকদের বলেন, চীনের এ সামরিক মহড়ায় যুক্তরাষ্ট্র উদ্বিগ্ন।যা মনে চাচ্ছে, তাই করে যাচ্ছে চীন।তবে আমার মনে হয় না, এর চেয়ে বেশি কিছু করতে পারবে চীন। তাইওয়ান ঘিরে চীনের এ মহড়া নিয়ে প্রথমবারের মতো প্রকাশ্যে মন্তব্য করলেন বাইডেন। সাম্প্রতিক সময়ে চীনের পিপলস লিবারেশন আর্মি যে মহড়া দিয়েছে তাতে দেখা গেছে, চীন প্রথমে চারপাশ থেকে তাইওয়ানকে ঘিরে ধরবে। চারপাশ থেকে ঘিরে ধরে তাইওয়ানকে বহিঃবিশ্ব থেকে বিচ্ছিন্ন করে ফেলবে। বর্তমানে তাইওয়ানের চারপাশ ঘিরে ছয়টি গুরুত্বপূর্ণ অংশে মহড়া চালাচ্ছে পিপলস লিবারেশন আর্মি। এ মহড়ায় রয়েছে চীনের নৌ বাহিনী, বিমান বাহিনীর শত শত যুদ্ধ জাহাজ ও বিমান। তাদের মহড়ার কারণে সেসব স্থানে সবধরনের বেসামরিক জাহাজ চলাচল বন্ধ আছে। আকাশের বিমানকেও তাদের পথ পরিবর্তন করতে হয়েছে। কারণ মহড়ায় তাজা গোলা ও মিসাইল ব্যবহার করছে চীনের সেনারা। চীনের এ মহড়ার ব্যাপারে চীন-যুক্তরাষ্ট্রের রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞ ও পিপলস লিবারেশন আর্মির ন্যাশনাল ডিফেন্স ইউনিভার্সিটির প্রফেসর মেং জিয়াংকিং বলেছেন, চীন তাইওয়ানকে ঘিরে যে ছয়টি অঞ্চলকে মহড়ার জন্য বেঁছে নিয়েছে সেটি দেখাচ্ছে, চীন বিশ্ব থেকে তাইওয়ানের বন্দরগুলো সহজেই বিচ্ছিন্ন করে ফেলতে পারবে, তাইওয়ানের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সামরিক স্থাপনায় হামলা চালাতে পারবে এবং যদি কোনো দেশ তাইওয়ানকে সহায়তা করতে আসার চেষ্টা করে তাহলে মিসাইল হামলার মাধ্যমে তাদেরও হটিয়ে দিতে পারবে।

নিউজ ডেস্ক: তাইওয়ানের চারদিক ঘিরে ফেলে সোমবার থেকে চীন নতুন করে যে সামরিক মহড়ায় শুরু করেছে, তাতে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

যুক্তরাষ্ট্রের হাউজ স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি গত মঙ্গলবার তাইওয়ান সফরে আসেন। এর প্রতিবাদে তাইওয়ানের চারপাশে সামরিক মহড়া চালাচ্ছে চীন।

বাইডেন তার দেলাওয়ারের বাসভবনে সোমবার সাংবাদিকদের বলেন, চীনের এ সামরিক মহড়ায় যুক্তরাষ্ট্র উদ্বিগ্ন।যা মনে চাচ্ছে, তাই করে যাচ্ছে চীন।তবে আমার মনে হয় না, এর চেয়ে বেশি কিছু করতে পারবে চীন।

তাইওয়ান ঘিরে চীনের এ মহড়া নিয়ে প্রথমবারের মতো প্রকাশ্যে মন্তব্য করলেন বাইডেন।

সাম্প্রতিক সময়ে চীনের পিপলস লিবারেশন আর্মি যে মহড়া দিয়েছে তাতে দেখা গেছে, চীন প্রথমে চারপাশ থেকে তাইওয়ানকে ঘিরে ধরবে। চারপাশ থেকে ঘিরে ধরে তাইওয়ানকে বহিঃবিশ্ব থেকে বিচ্ছিন্ন করে ফেলবে।

বর্তমানে তাইওয়ানের চারপাশ ঘিরে ছয়টি গুরুত্বপূর্ণ অংশে মহড়া চালাচ্ছে পিপলস লিবারেশন আর্মি। এ মহড়ায় রয়েছে চীনের নৌ বাহিনী, বিমান বাহিনীর শত শত যুদ্ধ জাহাজ ও বিমান।

তাদের মহড়ার কারণে সেসব স্থানে সবধরনের বেসামরিক জাহাজ চলাচল বন্ধ আছে। আকাশের বিমানকেও তাদের পথ পরিবর্তন করতে হয়েছে। কারণ মহড়ায় তাজা গোলা ও মিসাইল ব্যবহার করছে চীনের সেনারা।

চীনের এ মহড়ার ব্যাপারে চীন-যুক্তরাষ্ট্রের রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞ ও পিপলস লিবারেশন আর্মির ন্যাশনাল ডিফেন্স ইউনিভার্সিটির প্রফেসর মেং জিয়াংকিং বলেছেন, চীন তাইওয়ানকে ঘিরে যে ছয়টি অঞ্চলকে মহড়ার জন্য বেঁছে নিয়েছে সেটি দেখাচ্ছে, চীন বিশ্ব থেকে তাইওয়ানের বন্দরগুলো সহজেই বিচ্ছিন্ন করে ফেলতে পারবে, তাইওয়ানের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সামরিক স্থাপনায় হামলা চালাতে পারবে এবং যদি কোনো দেশ তাইওয়ানকে সহায়তা করতে আসার চেষ্টা করে তাহলে মিসাইল হামলার মাধ্যমে তাদেরও হটিয়ে দিতে পারবে।

সূত্র: যুগান্তর