বাংলাদেশকে সাড়ে ৪ বিলিয়ন ডলার ঋণ দেবে আইএমএফ

8
বাংলাদেশকে সাড়ে ৪ বিলিয়ন ডলার ঋণ দেবে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ)। সার্বিক দিক বিবেচনা করে আন্তর্জাতিক এই সংস্থা বাংলাদেশকে ঋণ দিতে রাজি হয়েছে বলে জানিয়েছেন কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক। বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে সাংবাদিকদের আলাপকারে তিনি এ কথা জানান। কৃষিমন্ত্রী বলেন, আইএমএফ বলেছে, তারা বাংলাদেশকে সাড়ে ৪ বিলিয়ন ডলার ঋণ দেবে। বাংলাদেশের এই মুহূর্তে কোনো দরকার নাই। কিন্তু এই যে কোনো পরিস্থিতি মোকাবেলা করার জন্য। ব্রাজিলের মতো দেশ, ভারত- সবাই আইএমএফের টাকা নেয়। বাংলাদেশ একটা চিঠি পাঠিয়েছে। চিঠির ভিত্তিতে গ্রিন সিগনাল দিয়েছে আমরা বাংলাদেশকে দেব। কাজেই সেটি আপনাকে বিবেচনায় নিতে হবে। বাংলাদেশের অর্থনীতির ভিত্তি অনেক মজবুত। মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের সক্ষমতা বিবেচনায় ঋণ দিতে রাজি হয়েছে তারা। এ সময় কৃষিমন্ত্রী বলেন, ইউরিয়া সারের দাম কেজিতে ছয় টাকা বাড়লেও কেউ যেন কৃত্রিম সংকট তৈরি করতে না পারে, সে বিষয়ে তদারকি করছে সরকার। আন্তর্জাতিক বাজারে অস্বাভাবিক দাম বাড়ার কারণেই ইউরিয়া সারের দাম কেজিপ্রতি ছয় টাকা বাড়ানো হয়েছে জানিয়ে ড. আব্দুর রাজ্জাক বলেন, সারের দাম বৃদ্ধিকে কেন্দ্র করে দেশের কোথাও যাতে কৃত্রিম সংকট তৈরি করতে না পারে, সেদিকে সরকার কঠোর মনিটরিং করবে। কৃত্রিম সংকট তৈরির মাধ্যমে সারের বেশি দাম নেওয়া হলে জড়িতদের কঠোর শাস্তির আওতায় আনা হবে। তিনি আরও বলেন, বিএনপির আমলের কথা ভুলে গেছেন। তাদের (বিএনপি) আমলে কৃষক সার না পেয়ে প্রতিবাদ করায় ১৮ জন কৃষককে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। ফলে সারের দাম বৃদ্ধিতে বিএনপিসহ কিছু দলের উদ্বেগ প্রকাশ চরম নির্লজ্জতার প্রমাণ।

নিউজ ডেস্ক: বাংলাদেশকে সাড়ে ৪ বিলিয়ন ডলার ঋণ দেবে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ)। সার্বিক দিক বিবেচনা করে আন্তর্জাতিক এই সংস্থা বাংলাদেশকে ঋণ দিতে রাজি হয়েছে বলে জানিয়েছেন কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক।

বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে সাংবাদিকদের আলাপকারে তিনি এ কথা জানান।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, আইএমএফ বলেছে, তারা বাংলাদেশকে সাড়ে ৪ বিলিয়ন ডলার ঋণ দেবে। বাংলাদেশের এই মুহূর্তে কোনো দরকার নাই। কিন্তু এই যে কোনো পরিস্থিতি মোকাবেলা করার জন্য। ব্রাজিলের মতো দেশ, ভারত- সবাই আইএমএফের টাকা নেয়। বাংলাদেশ একটা চিঠি পাঠিয়েছে। চিঠির ভিত্তিতে গ্রিন সিগনাল দিয়েছে আমরা বাংলাদেশকে দেব। কাজেই সেটি আপনাকে বিবেচনায় নিতে হবে। বাংলাদেশের অর্থনীতির ভিত্তি অনেক মজবুত।

মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের সক্ষমতা বিবেচনায় ঋণ দিতে রাজি হয়েছে তারা।

এ সময় কৃষিমন্ত্রী বলেন, ইউরিয়া সারের দাম কেজিতে ছয় টাকা বাড়লেও কেউ যেন কৃত্রিম সংকট তৈরি করতে না পারে, সে বিষয়ে তদারকি করছে সরকার।

আন্তর্জাতিক বাজারে অস্বাভাবিক দাম বাড়ার কারণেই ইউরিয়া সারের দাম কেজিপ্রতি ছয় টাকা বাড়ানো হয়েছে জানিয়ে ড. আব্দুর রাজ্জাক বলেন, সারের দাম বৃদ্ধিকে কেন্দ্র করে দেশের কোথাও যাতে কৃত্রিম সংকট তৈরি করতে না পারে, সেদিকে সরকার কঠোর মনিটরিং করবে। কৃত্রিম সংকট তৈরির মাধ্যমে সারের বেশি দাম নেওয়া হলে জড়িতদের কঠোর শাস্তির আওতায় আনা হবে।

তিনি আরও বলেন, বিএনপির আমলের কথা ভুলে গেছেন। তাদের (বিএনপি) আমলে কৃষক সার না পেয়ে প্রতিবাদ করায় ১৮ জন কৃষককে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। ফলে সারের দাম বৃদ্ধিতে বিএনপিসহ কিছু দলের উদ্বেগ প্রকাশ চরম নির্লজ্জতার প্রমাণ।

সূত্র: যুগান্তর