ইরাকের পার্লামেন্টে বিক্ষোভকারীদের হামলা

5
ইরাকের পার্লামেন্টে হামলা চালিয়েছেন শত শত বিক্ষোভকারী। হামলাকারীদের অধিকাংশই ইরাকি শিয়া নেতা মুকতাদা আল-সদরের অনুসারী। বুধবার দেশটির রাজধানী বাগদাদের গ্রিন জোনে অবস্থিত ওই পার্লামেন্ট ভবনে হামলার এ ঘটনা ঘটে। খবর আলজাজিরা। প্রধানমন্ত্রীর পদে ইরান-সমর্থিত দলগুলোর মনোনয়নের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করার সময় বাগদাদে পার্লামেন্ট ভবনে হামলার এ ঘটনা ঘটে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, প্রধানমন্ত্রীর মনোনয়নের বিরুদ্ধে প্রতিবাদের সময় পার্লামেন্ট ভবনে হামলা চালানো শত শত বিক্ষোভকারীর অধিকাংশই ইরাকি শিয়া নেতা মুকতাদা আল-সদরের অনুসারী। পার্লামেন্ট ভবনটি বাগদাদের সুরক্ষিত এলাকা বলে পরিচিত গ্রিন জোনে অবস্থিত। আলজাজিরার প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, বুধবার বিক্ষোভকারীরা যখন সরকারি ভবন ও কূটনৈতিক মিশনের আবাসস্থল রাজধানীর উচ্চ নিরাপত্তাবলয় হিসেবে পরিচিত গ্রিন জোনে প্রবেশ করে, তখন পার্লামেন্টে কোনো আইনপ্রণেতা উপস্থিত ছিল না। এ সময় শুধু নিরাপত্তা বাহিনী ভবনের ভেতরে থাকলেও তারা বিক্ষোভকারীদের তুলনামূলক স্বাচ্ছন্দ্যেই সেখানে প্রবেশ করতে দেন। মধ্যপ্রাচ্যের এই দেশটিতে প্রধানমন্ত্রীর পদে ইরান-সমর্থিত দলগুলোর মনোনয়ন পেয়েছেন মোহাম্মদ শিয়া আল-সুদানি। তিনি ইরাকের সাবেক একজন মন্ত্রী এবং সাবেক প্রাদেশিক গভর্নর। তবে বিক্ষোভকারীরা মোহাম্মদ শিয়া আল-সুদানির এই প্রার্থিতার বিরোধিতা করছেন।

নিউজ ডেস্ক: ইরাকের পার্লামেন্টে হামলা চালিয়েছেন শত শত বিক্ষোভকারী। হামলাকারীদের অধিকাংশই ইরাকি শিয়া নেতা মুকতাদা আল-সদরের অনুসারী।

বুধবার দেশটির রাজধানী বাগদাদের গ্রিন জোনে অবস্থিত ওই পার্লামেন্ট ভবনে হামলার এ ঘটনা ঘটে। খবর আলজাজিরা।

প্রধানমন্ত্রীর পদে ইরান-সমর্থিত দলগুলোর মনোনয়নের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করার সময় বাগদাদে পার্লামেন্ট ভবনে হামলার এ ঘটনা ঘটে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, প্রধানমন্ত্রীর মনোনয়নের বিরুদ্ধে প্রতিবাদের সময় পার্লামেন্ট ভবনে হামলা চালানো শত শত বিক্ষোভকারীর অধিকাংশই ইরাকি শিয়া নেতা মুকতাদা আল-সদরের অনুসারী। পার্লামেন্ট ভবনটি বাগদাদের সুরক্ষিত এলাকা বলে পরিচিত গ্রিন জোনে অবস্থিত।

আলজাজিরার প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, বুধবার বিক্ষোভকারীরা যখন সরকারি ভবন ও কূটনৈতিক মিশনের আবাসস্থল রাজধানীর উচ্চ নিরাপত্তাবলয় হিসেবে পরিচিত গ্রিন জোনে প্রবেশ করে, তখন পার্লামেন্টে কোনো আইনপ্রণেতা উপস্থিত ছিল না। এ সময় শুধু নিরাপত্তা বাহিনী ভবনের ভেতরে থাকলেও তারা বিক্ষোভকারীদের তুলনামূলক স্বাচ্ছন্দ্যেই সেখানে প্রবেশ করতে দেন।

মধ্যপ্রাচ্যের এই দেশটিতে প্রধানমন্ত্রীর পদে ইরান-সমর্থিত দলগুলোর মনোনয়ন পেয়েছেন মোহাম্মদ শিয়া আল-সুদানি। তিনি ইরাকের সাবেক একজন মন্ত্রী এবং সাবেক প্রাদেশিক গভর্নর। তবে বিক্ষোভকারীরা মোহাম্মদ শিয়া আল-সুদানির এই প্রার্থিতার বিরোধিতা করছেন।

সূত্র: যুগান্তর