কোনো ধরনের সমালোচনা গুরুত্ব দিচ্ছি না

5
ঈদের পর কাজে না ফিরলেও ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে আলোচনার তুঙ্গে আছেন চিত্রনায়িকা দিলারা হানিফ পূর্ণিমা। মাস দুয়েক আগে আবারও বিয়ে করেছেন চিত্র নায়িকা। বর্তমানে ব্যস্ত আছেন নতুন সংসার নিয়ে। এ ছাড়া কাজে ফেরার প্রস্তুতিও নিচ্ছেন। বিয়ে, অভিনয়, উপস্থাপনাসহ প্রাসঙ্গিক বিষয় নিয়ে আজকের ‘হ্যালো...’ বিভাগে কথা বলেছেন তিনি। * নতুন সংসারে সময় কেমন কাটছে? ** বেশ ভালো সময় কাটছে। আমার স্বামীর পরিবারের সদস্য ও আত্মীয়-স্বজনদের সঙ্গে নিয়ে সুন্দরভাবে আনন্দঘন পরিবেশেই দিন কাটছে। সব মিলিয়ে এখন বেশ ভালো আছি। আমার যেমন প্রত্যাশা ছিল, ঠিক তেমন পরিবারেই বিয়ে হয়েছে। * বিয়ের খবর জানাতে দেরি করেছেন কেন? ** আসলে ভালো সময়ের অপেক্ষার কারণেই দেরি হয়েছে। কারণ, বিয়ের পরপরই পরিবারের বেশিরভাগ সদস্য করোনায় আক্রান্ত ছিল। অসুস্থতা নিয়েই তখন ব্যস্ত থাকতে হয়েছে। এ ছাড়া আমরাও একটু দেরিতেই বিয়ের খবর প্রকাশ করার পরিকল্পনা করেছিলাম। * স্বামী হিসাবে কেমন মানুষ পেলেন? ** আমার স্বামী বেশ দায়িত্বশীল একজন মানুষ। বিয়ের অনেক আগে থেকেই আমার সঙ্গে পরিচয় তার। প্রায় বছর তিনেক তো হবে। এ সময়ের মধ্যে নিজেরা নিজেদের সম্পর্কে জেনে বুঝেই বিয়ের সিদ্ধান্তে আসি। এখন মনে হচ্ছে বিয়ের সিদ্ধান্তটি সঠিক ছিল। * আপনার বিয়ের খবর প্রকাশ হওয়ার পর কিছু নেতিবাচক আলোচনা হচ্ছে... ** সব সময়ই যে কোনো ঘটনা কিংবা বিষয়ে মানুষের ইতিবাচকের পাশাপাশি নেতিবাচক কর্মকাণ্ড দেখা যায়। আমি সেসব নিয়ে মোটেও ভাবি না। আমি তো নেতিবাচক কাজ করিনি। তাই কোনো ধরনের সমালোচনা গুরুত্ব দিচ্ছি না। যারা নিন্দুক, তারা সব সময় নিন্দাই করবে। তার জন্য কি থেমে থাকব? মোটেও না। * গত ঈদে শুধু অনুষ্ঠান উপস্থাপনাতেই সীমাবদ্ধ ছিলেন... ** আসলে মানসম্মত কাজ না পাওয়ায় অভিনয় থেকে বিরত ছিলাম। তবে উপস্থাপনার জন্য অনেকের কাছ থেকেই ভালো সাড়া পেয়েছি। এ কাজটি আমি বেশ আগ্রহ নিয়েই করি। আর আমি মনে করি, আমার উপস্থাপনারও অনেক ভক্ত আছেন। তারা আমাকে উৎসাহিত করেন সব সময়। বলা যায়, তাদের আগ্রহের কারণেই বারবার ফিরে আসি উপস্থাপনায়। সামনের সময়গুলোতেও উপস্থাপনায় দেখা যাবে আমাকে। * আপনার অভিনীত ‘গাঙচিল’ নামের একটি সিনেমা মুক্তির অপেক্ষায় আছে। এটি নিয়ে প্রত্যাশা কী? ** করোনা পরিস্থিতির কারণেই সিনেমাটির নির্মাণ কাজ এবং মুক্তির বিষয়টি বিলম্বিত হচ্ছে। শুধু ঢাকাতেই নয়, এটির জন্য নোয়াখালীতেও শুটিং করেছি। এখন সম্পাদনার কাজ চলছে। যতটুকু জেনেছি, তাতে মনে হচ্ছে চলতি বছরই হয়তো সিনেমাটি মুক্তি পাবে। আমি এ সিনেমার সফলতা নিয়ে আশাবাদী।

নিউজ ডেস্ক: ঈদের পর কাজে না ফিরলেও ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে আলোচনার তুঙ্গে আছেন চিত্রনায়িকা দিলারা হানিফ পূর্ণিমা। মাস দুয়েক আগে আবারও বিয়ে করেছেন চিত্র নায়িকা। বর্তমানে ব্যস্ত আছেন নতুন সংসার নিয়ে। এ ছাড়া কাজে ফেরার প্রস্তুতিও নিচ্ছেন। বিয়ে, অভিনয়, উপস্থাপনাসহ প্রাসঙ্গিক বিষয় নিয়ে আজকের ‘হ্যালো…’ বিভাগে কথা বলেছেন তিনি।

* নতুন সংসারে সময় কেমন কাটছে?

** বেশ ভালো সময় কাটছে। আমার স্বামীর পরিবারের সদস্য ও আত্মীয়-স্বজনদের সঙ্গে নিয়ে সুন্দরভাবে আনন্দঘন পরিবেশেই দিন কাটছে। সব মিলিয়ে এখন বেশ ভালো আছি। আমার যেমন প্রত্যাশা ছিল, ঠিক তেমন পরিবারেই বিয়ে হয়েছে।

* বিয়ের খবর জানাতে দেরি করেছেন কেন?

** আসলে ভালো সময়ের অপেক্ষার কারণেই দেরি হয়েছে। কারণ, বিয়ের পরপরই পরিবারের বেশিরভাগ সদস্য করোনায় আক্রান্ত ছিল। অসুস্থতা নিয়েই তখন ব্যস্ত থাকতে হয়েছে। এ ছাড়া আমরাও একটু দেরিতেই বিয়ের খবর প্রকাশ করার পরিকল্পনা করেছিলাম।

* স্বামী হিসাবে কেমন মানুষ পেলেন?

** আমার স্বামী বেশ দায়িত্বশীল একজন মানুষ। বিয়ের অনেক আগে থেকেই আমার সঙ্গে পরিচয় তার। প্রায় বছর তিনেক তো হবে। এ সময়ের মধ্যে নিজেরা নিজেদের সম্পর্কে জেনে বুঝেই বিয়ের সিদ্ধান্তে আসি। এখন মনে হচ্ছে বিয়ের সিদ্ধান্তটি সঠিক ছিল।

* আপনার বিয়ের খবর প্রকাশ হওয়ার পর কিছু নেতিবাচক আলোচনা হচ্ছে…

** সব সময়ই যে কোনো ঘটনা কিংবা বিষয়ে মানুষের ইতিবাচকের পাশাপাশি নেতিবাচক কর্মকাণ্ড দেখা যায়। আমি সেসব নিয়ে মোটেও ভাবি না। আমি তো নেতিবাচক কাজ করিনি। তাই কোনো ধরনের সমালোচনা গুরুত্ব দিচ্ছি না। যারা নিন্দুক, তারা সব সময় নিন্দাই করবে। তার জন্য কি থেমে থাকব? মোটেও না।

* গত ঈদে শুধু অনুষ্ঠান উপস্থাপনাতেই সীমাবদ্ধ ছিলেন…

** আসলে মানসম্মত কাজ না পাওয়ায় অভিনয় থেকে বিরত ছিলাম। তবে উপস্থাপনার জন্য অনেকের কাছ থেকেই ভালো সাড়া পেয়েছি। এ কাজটি আমি বেশ আগ্রহ নিয়েই করি। আর আমি মনে করি, আমার উপস্থাপনারও অনেক ভক্ত আছেন। তারা আমাকে উৎসাহিত করেন সব সময়। বলা যায়, তাদের আগ্রহের কারণেই বারবার ফিরে আসি উপস্থাপনায়। সামনের সময়গুলোতেও উপস্থাপনায় দেখা যাবে আমাকে।

* আপনার অভিনীত ‘গাঙচিল’ নামের একটি সিনেমা মুক্তির অপেক্ষায় আছে। এটি নিয়ে প্রত্যাশা কী?

** করোনা পরিস্থিতির কারণেই সিনেমাটির নির্মাণ কাজ এবং মুক্তির বিষয়টি বিলম্বিত হচ্ছে। শুধু ঢাকাতেই নয়, এটির জন্য নোয়াখালীতেও শুটিং করেছি। এখন সম্পাদনার কাজ চলছে। যতটুকু জেনেছি, তাতে মনে হচ্ছে চলতি বছরই হয়তো সিনেমাটি মুক্তি পাবে। আমি এ সিনেমার সফলতা নিয়ে আশাবাদী।

সূত্র: যুগান্তর