লিটনের পর সাজঘরে সাকিবও

6
চতুর্থ দিন বিকালে ২৩ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে পরাজয়ের ডঙ্কা বাজছিল বাংলাদেশ শিবিরে। যদিও মুশফিকুর রহিম আর লিটন দাস ছিলেন আশার প্রদীপ হয়ে। কিন্তু পঞ্চম ও শেষ দিনে শুরুতেই ২৩ রানে বিদায় নিয়ে সেই আশার প্রদীপের আলোকে প্রায় নিভিয়ে দেন মুশফিক। ৫৩ রানে ৫ উইকেট হাওয়া। না যেন ইনিংস পরাজয় দেখতে হয়! এমন বিপর্যয়ের মুখে সাকিব আল হাসানকে নিয়ে দলের হাল ধরেন লিটন দাস। ষষ্ঠ উইকেটে তাদের দারুণ এক জুটিতে ইনিংস পরাজয় এড়িয়ে লিড নেয় বাংলাদেশ। কিন্তু হাফসেঞ্চুরির পরই যেন ফেরার তাড়ায় ছিলেন এ দুই ব্যাটার। ফিফটি করেই বিদায় নেন লিটন, এর পর সাজঘরে ফিরলেন সাকিবও। সকাল থেকেই লংকানদের দুই মূল বোলার রাজিথা ও আসিথার আক্রমণকে দারুণভাবে প্রতিহত করেন সাকিব-লিটন। অফস্টাম্পের বাইরের বল পেলেই বাউন্ডারি হাঁকিয়েছেন দুজনে। অনেকটা ওয়ানডের গতিতে ফিফটি হাঁকিয়েছেন সাকিব। ৬১ বলে ৭ বাউন্ডারিতে ৫২ রান জমা করেন সাকিব। যদিও ব্যক্তিগত সংগ্রহ সেভাবে বাড়িয়ে নিতে পারেননি। লাঞ্চবিরতির পর যোগ করতে পারেন মাত্র ৬ রান। আসিথা ফার্নান্দোর শরীর তাক করা বাউন্সার পুল করার চেষ্টায় দেরি করে ফেলেন সাকিব। বল তার গ্লাভসে ছোবল দিয়ে সহজ ক্যাচ উঠে যায় কিপার নিরোশান ডিকভেলার কাছে। এর আগে ৫২ রান করে ফিরে যান লিটন। নিজের বলে দুর্দান্ত ক্যাচে লিটন দাসকে বিদায় করে দিলেন আসিথা ফার্নান্দো। অফ স্টাম্পে পিচ করা লেংথ বল হালকা মুভ করে ঢোকে ভেতরে। লিটন সোজা ব্যাটে ড্রাইভ করার চেষ্টায় ব্যাট হাঁকান। কিন্তু ব্যাটে বলে হয়নি। সোজা চলে যায় বোলারের কাছে। ডান দিক ঝাঁপিয় অসাধারণ ক্ষীপ্রতায় এক হাতে বল জমান ফার্নান্দো। এ প্রতিবেদন লেখার সময় বাংলাদেশের রান ৭ উইকেটে ১৬৮। লিড মোটে ২৭ রানের। ব্যাট হাতে লড়াই করছেন মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত ও তাইজুল ইসলাম।

নিউজ ডেস্ক: চতুর্থ দিন বিকালে ২৩ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে পরাজয়ের ডঙ্কা বাজছিল বাংলাদেশ শিবিরে।

যদিও মুশফিকুর রহিম আর লিটন দাস ছিলেন আশার প্রদীপ হয়ে। কিন্তু পঞ্চম ও শেষ দিনে শুরুতেই ২৩ রানে বিদায় নিয়ে সেই আশার প্রদীপের আলোকে প্রায় নিভিয়ে দেন মুশফিক।

৫৩ রানে ৫ উইকেট হাওয়া। না যেন ইনিংস পরাজয় দেখতে হয়! এমন বিপর্যয়ের মুখে সাকিব আল হাসানকে নিয়ে দলের হাল ধরেন লিটন দাস।

ষষ্ঠ উইকেটে তাদের দারুণ এক জুটিতে ইনিংস পরাজয় এড়িয়ে লিড নেয় বাংলাদেশ।

কিন্তু হাফসেঞ্চুরির পরই যেন ফেরার তাড়ায় ছিলেন এ দুই ব্যাটার।

ফিফটি করেই বিদায় নেন লিটন, এর পর সাজঘরে ফিরলেন সাকিবও।

সকাল থেকেই লংকানদের দুই মূল বোলার রাজিথা ও আসিথার আক্রমণকে দারুণভাবে প্রতিহত করেন সাকিব-লিটন। অফস্টাম্পের বাইরের বল পেলেই বাউন্ডারি হাঁকিয়েছেন দুজনে।

অনেকটা ওয়ানডের গতিতে ফিফটি হাঁকিয়েছেন সাকিব। ৬১ বলে ৭ বাউন্ডারিতে ৫২ রান জমা করেন সাকিব। যদিও ব্যক্তিগত সংগ্রহ সেভাবে বাড়িয়ে নিতে পারেননি।

লাঞ্চবিরতির পর যোগ করতে পারেন মাত্র ৬ রান।

আসিথা ফার্নান্দোর শরীর তাক করা বাউন্সার পুল করার চেষ্টায় দেরি করে ফেলেন সাকিব। বল তার গ্লাভসে ছোবল দিয়ে সহজ ক্যাচ উঠে যায় কিপার নিরোশান ডিকভেলার কাছে।

এর আগে ৫২ রান করে ফিরে যান লিটন। নিজের বলে দুর্দান্ত ক্যাচে লিটন দাসকে বিদায় করে দিলেন আসিথা ফার্নান্দো।

অফ স্টাম্পে পিচ করা লেংথ বল হালকা মুভ করে ঢোকে ভেতরে। লিটন সোজা ব্যাটে ড্রাইভ করার চেষ্টায় ব্যাট হাঁকান। কিন্তু ব্যাটে বলে হয়নি। সোজা চলে যায় বোলারের কাছে।  ডান দিক ঝাঁপিয় অসাধারণ ক্ষীপ্রতায় এক হাতে বল জমান ফার্নান্দো।

এ প্রতিবেদন লেখার সময় বাংলাদেশের রান ৭ উইকেটে ১৬৮। লিড মোটে ২৭ রানের।  ব্যাট হাতে লড়াই করছেন মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত ও তাইজুল ইসলাম।

সূত্র: যুগান্তর