বাড়ির সামনে বর্জ্য পেলে আরো বর্জ্য ফেলে আসা হবে

2

নিউজ ডেস্ক: রাজধানীতে কোনো বাড়ির সামনে কোরবানির পশুর বর্জ্য না ফেলার অনুরোধ জানিয়েছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম। অন্যথায় ডিএনসিসির ময়লার গাড়ি বেশি পরিমাণ বর্জ্য সেখানে ফেলে আসবে বলে কড়া হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন তিনি।

গতকাল মঙ্গলবার (২১ জুলাই) রাজধানীর মহাখালীতে দেশের সবচেয়ে বড় ডিএনসিসি ডেডিকেটেড করোনা হাসপাতালে বাইপ্যাপ এবং হাই-ফ্লো ন্যাজাল ক্যানোলা মেশিন হস্তান্তর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এই হুঁশিয়ারি উচ্ছারণ করেন তিনি।

মেয়র আতিক বলেন, কোরবানির পশুর বর্জ্যে যাতে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশের সৃষ্টি না হয়, সেজন্য ওয়ার্ড কাউন্সিলরদের মাধ্যমে নগরবাসীর মধ্যে এরই মধ্যে ছয় লাখ ৫০ হাজার বর্জ্য ব্যাগ, ৫০ মেট্রিক টন ব্লিচিং পাউডার এবং পাঁচ লিটার আয়তনের ১০০৫ ক্যান স্যাভলন বিতরণ করা হয়েছ। সুতরাং, বাড়ির সামনে কোরবানির বর্জ্য না ফেলার অনুরোধ করছি। অন্যথায় ডিএনসিসির ময়লার গাড়ি বেশি পরিমাণ বর্জ্য সেখানে ফেলে আসবে।

ডিএনসিসি মেয়র বলেন, ঈদুল আজহায় স্থানীয় কাউন্সিলরসহ সবার আন্তরিক সহযোগিতায় ২৪ ঘণ্টার মধ্যে কোরবানির পশুর বর্জ্য অপসারণ করা হবে। তিনি বলেন, বিশেষ পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রমের আওতায় ঈদুল আজহায় ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে মোট ১১ হাজার ৫০৮ জন কর্মী কোরবানির বর্জ্য অপসারণ কাজে নিয়োজিত থাকবে।

মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম বলেন, করোনা মহামারি চলাকালে যার যা সামর্থ্য আছে, তা নিয়েই ত্যাগের মানসিকতায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত মানুষের চিকিৎসায় এগিয়ে আসতে হবে। তিনি বলেন, কোরবানি পশুর বর্জ্য অপসারণে গুলশানের নগর ভবনে কন্ট্রোল রুম স্থাপন করা হয়েছে। নিয়ন্ত্রণ কক্ষের নম্বরগুলো হলো- ০২৫৮৮১৪২২০, ০৯৬০২২২২৩৩৩ ও ০৯৬০২২২২৩৩৪।