করোনা সেরে ওঠার পর শ্বাসকষ্ট, যা বলছেন চিকিৎসকরা

1

নিউজ ডেস্ক: করোনা থেকে সুস্থ হওয়ার পরও অনেকের শরীরেই থেকে যাচ্ছে অনেক শরীরিক সমস্যা। কারো ক্ষেত্রে তিন সপ্তাহ তো কারো ক্ষেত্রে তিন মাস পর্যন্ত ভোগাচ্ছে করোনা। বেশির ভাগ করোনা রোগীর ক্ষেত্রেই দেখা গেছে শ্বাসকষ্ট বা দুর্বলতার মতো সমস্যা। করোনা-পরবর্তী  দুর্বলতা  বা শ্বাসকষ্ট কাটাতে ‘পালমোনারি রিহ্যাবিলিটেশনের’ পরামর্শ দিচ্ছেন চিকিৎসক।

গবেষণায় দেখা গিয়েছে করোনায় গুরুতর অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি রোগীদের ৬০ থেকে ৭০ শতাংশ রোগী বাড়ি ফেরার তিন সপ্তাহ পরেও কোনো না কোনো সমস্যায় ভুগছেন। ১৫ থেকে ২০ শতাংশ রোগী করোনার কারণে তিন মাস অসুস্থতায় ভুগছেন। এ পরিস্থিতিতে চিকিৎসকরা পালমোনারি রিহ্যাবিলিটেশন বা ফুসফুসের অতিরিক্ত যত্ন নেওয়ার প্রতি জোর দিয়েছেন।

শুধু ওষুধ না ফুসফুস সুস্থ রাখতে জীবনযাত্রায় পরিবর্তন আনা জরুরি। তবে এখন প্রশ্ন হলো- কাদের পালমোনারি রিহ্যাবিলিটেশন জরুরি? চিকিৎসকরা বলছেন, করোনার পর যারা শ্বাসকষ্ট, দুর্বলতা, ক্লান্তির সমস্যায় ভুগছেন তাদের। তাদের মতে, ‘৬ মিনিট জোরে হেঁটে ৩৫০ মিটারও না যেতে পারলে চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া উচিত।’

চিকিৎসকের পরামর্শে বাড়িতেও শুরু করা যেতে পারে ফিজিওথেরাপি। হাত-পায়ের ব্যায়ামের পাশাপাশি শ্বাস-প্রশ্বাস সংক্রান্ত ব্যায়ামও জরুরি। সেই সঙ্গে প্রতিবেলা অবশ্যই স্বাস্থ্যকর খাবার খেতে হবে। ধূমপান কমাতে হবে। শরীরের সঙ্গে যত্ন নিতে হবে মনের।