রোনালদোকে টপকে সর্বোচ্চ আয় মেসির

0
1

নিউজ ডেস্ক: চলতি বছরের মে’তে লিওনেল মেসিকে ছাড়িয়ে সর্বোচ্চ আয়ের ফুটবলার হয়েছিলেন জুভেন্টাসের ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। করোনার কারণে দু’জনেরই আয় কমে গিয়েছিল। কারণ তারা বেতনের একটা অংশ ছেড়ে দিয়েছিলেন। সেই সুযোগে প্রথমবারের মতো ফোবর্সের সর্বোচ্চ আয় করা অ্যাথলেটস হয়েছিলেন রজার ফেদেরার।

কিন্তু করোনা পরবর্তী আবার ফুটবল ফিরতেই আয় বেড়ে গেছে মেসি-রোনালদোদের। নতুন মৌসুম শুরুর আগে রোনালদোকে ছাড়িয়ে সর্বোচ্চ আয় করা ফুটবলারও হয়ে গেছেন বাধ্য হয়েই বার্সাতে থেকে যাওয়া মেসি। তার বার্ষিক আয় ১২৬ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। বেতন এবং এন্ডোর্সমেন্ট থেকে বছরে ওই অর্থ আয় তার।

বাংলাদেশের হিসেবে যা প্রায় এক হাজার ৬৯ কোটি টাকা। অন্যদিকে তার পরে থাকা রোনালদোর আয় বছরে ১১৭ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। মেসির থেকে খুব একটা পিছিয়ে নেই তিনি। বাংলাদেশের হিসেবে বছরে রোনালদো বেতন ও এন্ডোর্সমেন্ট থেকে আয় করেন প্রায় নয়শ’ ৯৩ কোটি টাকা।

এর আগে ফোবর্স সাময়ীকির দেওয়া হিসেব অনুযায়ী, রোনালদোর আয় দেখানো হয়েছিল ১০৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। রোনালদোর পরে থাকা মেসির আয় ধরা হয়েছিল ১০৪ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। ফোবর্সের বর্তমান তালিকায় আয়ের হিসেবে তিনে আছেন পিএসজির নেইমার। তিনি আয় করেন ৯৬ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। চারে থাকা এমবাপ্পের আয় ৪২ মিলিয়ন মার্কিন ডলার।

এছাড়া পাঁচে আছেন লিভারপুলের মোহামেদ সালাহ। ছয়ে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের পল পগবা, সাতে অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদ থেকে বার্সায় আসা অ্যান্তোনিও গ্রিজম্যান ও আটে রিয়ালের বাতিলের খাতায় পড়ে যাওয়া গ্যারেথ বেল। নয় নম্বরে বায়ার্ন মিউনিখের বরার্ট লেভানডভস্কি। চলতি মৌসুমে ট্রেবল জেতা এই পোলিশ স্ট্রাইকারের আয় ২৮ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। দশে থাকা ম্যানইউয়ের ডেভিড ডি গিয়া আয় করেন ২৭ মিলিয়ন মার্কিন ডলার।এছাড়া পাঁচে আছেন লিভারপুলের মোহামেদ সালাহ। ছয়ে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের পল পগবা, সাতে অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদ থেকে বার্সায় আসা অ্যান্তোনিও গ্রিজম্যান ও আটে রিয়ালের বাতিলের খাতায় পড়ে যাওয়া গ্যারেথ বেল। নয় নম্বরে বায়ার্ন মিউনিখের বরার্ট লেভানডভস্কি। চলতি মৌসুমে ট্রেবল জেতা এই পোলিশ স্ট্রাইকারের আয় ২৮ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। দশে থাকা ম্যানইউয়ের ডেভিড ডি গিয়া আয় করেন ২৭ মিলিয়ন মার্কিন ডলার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here